বাংলাদেশ, শীর্ষ খবর

অযত্ন অবহেলায় জীর্ণ জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম

দেয়ালের পলেস্তারা খসে পড়ছে। অল্প বৃষ্টিতেই ছাদ চুয়ে পানি পড়ে। অস্বাস্থ্যকর অজুখানা, নোংরা টয়লেট। এমন চিত্র জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের। এক অংশে মাদকাসক্তদের নীরব আশ্রয়স্থল। মুসল্লিদের অভিযোগ বিস্তর। আর কর্তৃপক্ষের অনুরোধ, আপাতত যেনো সংবাদ পরিবেশন না করা হয়।

জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররম

বায়তুল মোকাররম, বাংলাদেশের জাতীয় ও সবচেয়ে বড় মসজিদ। সংস্কার নেই ১১ বছর। অযত্ন অবহেলায় জরাজীর্ণ। উত্তর গেইট দিয়ে ঢুকতেই, চোখে পড়ে দুরাবস্থার চিত্র।

ভেতরের চিত্র আরও করুণ। পলেস্তারা খসে পড়ছে, সঙ্গে দেয়ালও। ভেতরের রডেও ধরছে মরিচা। রংতুলির আঁচড় পড়েনি বহু বছর।

অল্প বৃষ্টিতেই ভেতরে পানি। অপরিষ্কার অপরিচ্ছন্ন। মসজিদের দক্ষিণ-পূর্ব অংশ মাদকাসক্তদের নিরাপদ আশ্রয়। থাকা-খাওয়া, সঙ্গে মাদক সেবন। বিব্রত মুসল্লিরা।

পূর্ব গেইটের সংস্কার কাজ থেমে আছে ১০ বছরেরও বেশি সময় ধরে। সামনেই ময়লার ভাগার।

মসজিদের দক্ষিণপাশের অজুখানা। সাক্ষাৎ ডাস্টবিন বললেও অত্যুক্তি হবে না। কলগুলো ভাঙা, নষ্ট। পানি জমে ব্যবহারের অনুপযোগী। এর ঠিক উপরেই রয়েছে আরও দুটি।

পূর্বাংশের অজুখানাতো আরও ভয়াবহ। সম্প্রচারযোগ্য নয়, এমন দৃশ্যও রয়েছে।

২০১০ সালে সর্বশেষ সংস্কার কাজ হয়। বেড়েছিলো মসজিদের দক্ষিণাংশের কলেবর। তখন যে আটটি অজুখানা করা হয়েছিলো, তার ৫টিই বন্ধ। এসব বিষয়ে জানতে চাইলে, এই প্রতিবেদন না করার পরামর্শ দেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী, মো. ফরিদুল হক খান।

সবার প্রত্যাশা, স্বাস্থ্যকর হয়ে উঠুক দেশের জাতীয় মসজিদটি। দ্রæত নেয়া হোক সংস্কারের উদ্যোগ।

শাফী/লিশা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

LIVE

হেঁচকি ওঠার কারণ ও কমানোর উপায়
মশা তাড়াতে যেসব উপকরণ ব্যবহার করা যায়
গ্রিন টির ভালো-মন্দ
পাহাড়ের ভাষা, সমতলের ভাষা