আন্তর্জাতিক, আলোচিত, বাংলাদেশ

অ্যাসাঞ্জকে যুক্তরাষ্ট্রের হাতে দেয়া হবে ‘ভয়ঙ্কর উদাহরণ’

উইকিলিকসের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের গ্রেপ্তারের ঘটনায় নিন্দার ঝড় বইছে বিশ্বজুড়ে। বৃহস্পতিবার, লন্ডনের ইকুয়েডর দূতাবাস থেকে তাকে টেনে হিঁচড়ে বের করে আনে ব্রিটিশ পুলিশ।

 

বৃহস্পতিবারই অ্যাসাঞ্জকে আদালতে তোলা হয়। শুনানিতে জামিনের শর্তভঙ্গ করে আদালতে আত্মসমর্পণ না করায় অ্যাসাঞ্জকে দোষী সাব্যস্ত করেছে আদালত।

 

যুক্তরাষ্ট্র সরকারের বিপুল গোপন নথি ফাঁস করেছিলো অ্যাসাঞ্জের উইকিলিকস। এ কারণে তাকে দেশে নিয়ে বিচার করতে চায় যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ আনা হয়েছে তার বিরুদ্ধে।

 

যুক্তরাষ্ট্রের অভিযোগ, তাদের সরকারি কম্পিউটার সিস্টেম থেকে বেআইনিভাবে প্রবেশ করে তথ্য চুরি করেছেন অ্যাসাঞ্জ। এই অভিযোগ প্রমাণ হলে, অ্যাসাঞ্জের পাঁচ বছর পর্যন্ত সাজা হতে পারে।

 

এখন ব্রিটেন সিদ্ধান্ত নেবে, অ্যাসাঞ্জকে যুক্তরাষ্ট্রের হাতে তুলে দেয়া হবে কিনা।

 

আদালতে অ্যাসাঞ্জের আইনজীবী জেনিফার রবিনসন বলেন, অ্যাসাঞ্জকে যুক্তরাষ্ট্রের হাতে তুলে দেয়া হবে ‘ভয়ঙ্কর উদাহরণ।’ এ ধরনের ঘটনা ঘটলে, যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কিত কোনো সত্য প্রকাশ করা, সব সাংবাদিকের জন্যই হয়ে উঠবে ঝুঁকির।

 

জেনিফার বলেন, তিনি পুলিশ সেলে থাকা অ্যাসাঞ্জের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন। সমর্থকদের ধন্যবাদ দিয়েছে অ্যাসাঞ্জ। পাশাপাশি বলেছেন, ‘আমি আপনাকে বলেছিলাম, এমনটাই হবে’। অর্থাৎ, তাকে যুক্তরাষ্ট্রের হাতে তুলে দেয়া হবে।

 

অ্যাসাঞ্জকে গ্রেপ্তারে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে রাশিয়া বলেছে, ‘গণতন্ত্রের ফেরীওয়ালারা স্বাধীনতার গলা টিপে ধরেছে।’ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছেন, উইকিলিকসের বিষয়ে কিছুই জানেন না তিনি।

 

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন গোপন তথ্য ফাঁস করে রাশিয়ার মস্কোতে স্বেচ্ছায় নির্বাসনে থাকা দেশটির গোয়েন্দা বিভাগের সাবেক কম্পিউটার বিশেষজ্ঞ অ্যাডওয়ার্ড স্নোডেন বলেছেন, ‘উইকিলিকসের সহ-প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জকে গ্রেপ্তার গণমাধ্যমের স্বাধীনতার জন্য একটি অন্ধকার মুহূর্ত।’

 

২০১০ সালে একের পর এক, মার্কিন কূটনৈতিক নথি ফাঁসের মধ্য দিয়ে বিশ্বজুড়ে আলোড়ন তোলে উইকিলিকস। গ্রেপ্তার এড়াতে ২০১২ সালে লন্ডনের ইকুয়েডর দূতাবাসে আশ্রয় নেন জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ।

 

শিআ/শাই/ফাআ
LIVE
Play
ভারত সরকার কি মিথ্যা বলছে?
ভারতকে কি হারাতে পারবে নিউজিল্যান্ড?
কতটা কঠিন হবে বাংলাদেশের সেমিফাইনাল?
রাইড শেয়ারিংয়ের অর্থনীতি