অর্থনীতি, বাংলাদেশ, শীর্ষ খবর

খেলাপি ঋণের ধুকছে বেসরকারি ব্যাংকগুলোও

এক সময় খেলাপি ঋণ সরকারি ব্যাংকেই বেশি ছিলো। কিন্তু, এখন বেসরকারি ব্যাংকেরও দশা প্রায় একই। ব্যাংকাররা বলছেন, ঋণ নিয়ে ফেরত না দেয়ার সংস্কৃতি বড্ড বেশি ভোগাচ্ছে এই খাতকে।

সুশাসনের ঘাটতি আর ব্যাংকের সংখ্যা বেড়ে যাওয়াও এর অন্যতম কারণ। অবস্থার উত্তরণে নানান সুযোগ দিচ্ছে সরকার। কিন্তু, এসব কতোটা কাজে আসবে, তা নিয়ে রয়ে গেছে সংশয়।

বেসরকারি ব্যাংকেরও বাড়ছে খেলাপি ঋণ

এক সময় খেলাপি ঋণ সরকারি ব্যাংকেই বেশি ছিলো। কিন্তু, এখন বেসরকারি ব্যাংকেরও দশা প্রায় একই। ব্যাংকাররা বলছেন, ঋণ নিয়ে ফেরত না দেয়ার সংস্কৃতি বড্ড বেশি ভোগাচ্ছে এই খাতকে। সুশাসনের ঘাটতি আর ব্যাংকের সংখ্যা বেড়ে যাওয়াও এর অন্যতম কারণ।

Posted by Nagorik – নাগরিক on Wednesday, September 18, 2019

ঋণ নিয়ে ফেরত না দিলে, গায়ে লাগে খেলাপি তকমা। কিন্তু, এতে কি কিছু আসে যায়? জনমনে এ নিয়ে ক্ষোভ, অস্বস্তি বা গালমন্দ থাকলেও, ঋণ শোধ না করাই যেন, দেশের ব্যাংক খাতের সবচেয়ে বড় সংস্কৃতি।

আগে সরকারি ব্যাংকই ছিলো খেলাপিদের প্রধান টার্গেট। এখন খেলাপিদের লোলুপ দৃষ্টি বেসরকারি ব্যাংকেও সমানে সমান। চলতি বছরের জুন পর্যন্ত, বেসরকারি ব্যাংকগুলোতে খেলাপি ঋণ দাঁড়িয়েছে প্রায় ৫২ হাজার কোটি টাকা। আর এই সময়ের মধ্যে সব মিলিয়ে খেলাপি ঋণ এক লাখ ১২ হাজার ৪২৫ কোটি টাকা।

বেসরকারি ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদগুলোর স্বচ্ছতা নিয়ে নানা ধরনের অভিযোগ উঠে আসছে। বলা হচ্ছে, পরিচালকরা যোগসাজশ করে ঋণ দেয়া-নেয়া করছেন। যা খেলাপি ঋণ বাড়ার অন্যতম কারণ।

খেলাপি কমাতে বকেয়ার ২ শতাংশ জমা দিয়ে ১০ বছরে ঋণ পরিশোধের সুযোগ দিচ্ছে সরকার। এই সুযোগ কতোটা কাজে আসবে, তা নিয়ে রয়েছে সংশয়।

হাইকোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী, ঋণ পুনঃতফসিলের জন্য আবেদনের সময়সীমা আগামী ২০ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। তবে নতুন কোনো ঋণ নিতে পারবেন না আবেদনকারীরা।

ফরহাদ হোসেন/ফই

LIVE
Play
গাণিতিকভাবে সবচেয়ে নিখুঁত সুন্দরী বেলা হাদিদ!
স্পেনের জানা-অজানা
টিকটকের মধুবালা
ফোর্বসের তালিকায় ২০১৯ সালে ভারতের শীর্ষ ধনী