দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ৪৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ৬৯৫ জন। ♦♦ নতুন ৪৮ জনের মৃত্যুর ফলে দেশে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৩ হাজার ৮৩ জনের। নতুন ২ হাজার ৬৯৫ জনসহ মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৩৪ হাজার ৮৮৯ জন। ♦♦ ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৬৬৮ জন। আর মোট সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ১ লাখ ৩২ হাজার ৯৬০ জন।♦♦ করোনা উপসর্গ দেখা দিলে অথবা করোনা বিষয়ক জরুরি স্বাস্থ্যসেবা পেতে ৩৩৩ অথবা ১৬২৬৩ নম্বরে কল করুন এবং তথ্য পেতে www.corona.gov.bd ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন।। এ ছাড়া আইইডিসিআরের ইমেইল বা ১৬২৬৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। ♦♦ www.livecoronatest.com এ আপনি ঘরে বসেই কোভিড-১৯ বা নভেল করোনা ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত কি'না, তা নিজেই মূল্যায়ন করতে পারবেন। এমনকি আপনার ঝুঁকির মাত্রা ও করনীয় সম্পর্কেও জানতে পারবেন।

আন্তর্জাতিক, আলোচিত, বাংলাদেশ

গালওয়ান থেকে সেনা সরাচ্ছে চীন-ভারত

বিতর্কিত সীমান্ত অঞ্চল পূর্ব লাদাখের গালওয়ান উপত্যকা থেকে অবশেষে সেনাবাহিনী সরিয়ে নিতে শুরু করেছে চীন ও ভারত।

সোমবার ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি উত্তেজনা কমাতে ‘বাফার জোন’ তৈরির উদ্দেশ্যেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

ভারতীয় সামরিক সূত্রগুলো জানিয়েছে, উত্তেজনা কমাতে সেনা সরিয়ে নেওয়ার পদক্ষেপ স্থায়ী কোনো সমাধান দেয় কি-না তা জানতে আরও কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।

সূত্রগুলো আরও জানিয়েছে, ‘বাফার জোন’ তৈরির উদ্দেশ্যে গালওয়ানের বিতর্কিত এলাকা থেকে অস্থায়ী স্থাপনাগুলোও সরিয়ে নিতে শুরু করেছে চীনা সেনারা। গত শুক্রবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হঠাৎ লাদাখ সফরের তিন দিন পর ওই অঞ্চল থেকে দুই দেশেরই সেনা সরে যাওয়ার খবর এলো।

শুধু গালওয়ান নয়, বিতর্কিত গোগরা এবং হট স্প্রিং এলাকাতেও চীন ও ভারত সেনা সরিয়ে নেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করেছে। তবে পূর্ব লাদাখের প্যাংগং লেকের উত্তরের ফিঙ্গার অঞ্চলের পরিস্থিতির কোনো পরিবর্তন হয়নি।

ভারতের সংবাদ সংস্থা এএনআই জানিয়েছে, গালওয়ানে প্রায় এক-দু’কিলোমিটার পিছিয়ে গিয়েছে চীনের সেনারা। তবে গালওয়ান নদীর তীরে চীনা সেনাদের সাজোয়া গাড়ি দেখা গেছে। ভারতীয় সেনাবাহিনী পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছে। গালওয়ান উপত্যকায় মোতায়েন ভারতীয় সেনাবাহিনীও আগের অবস্থান থেকে পিছু হটেছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, গত ১৫ জুন ভারত ও চীনের সেনাবাহিনীর মধ্যে গালওয়ানের যে স্থানে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়েছিল সেখান থেকে চীনা সেনাদের সরে যেতে দেখা গেছে। তাবু ও অন্যান্য অস্থায়ী স্থাপনা সরিয়ে নিয়েছে তারা। তবে এই প্রক্রিয়ায় দায়িত্বপ্রাপ্ত কোনো চীনা সামরিক কর্মকর্তা সংবাদ মাধ্যমের সামনে কোনো মন্তব্য করেননি।

সোমবার সেনা সরানোর প্রক্রিয়ার বিষয়ে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ঝাও লিজিয়ানকে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে তিনি জানান, দুই দেশই সীমান্তে স্থিতিশীল অবস্থা ফিরিয়ে আনতে কাজ করছে। দুই দেশের ঐকমত্যে পৌঁছানো বিষয়গুলো ভারত ঠিকমতো পালন করবে বলেও আশা প্রকাশ করেছেন লিজিয়ান।

গত ১৫ জুন গালওয়ানে চীন ও ভারতীয় সেনাবাহিনীর মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ হয়। এতে ২০ ভারতীয় সেনার মৃত্যু হয়। চীনা সেনাবাহিনীতেও হতাহতের ঘটনা ঘটেছে বলে ভারত দাবি করলেও বেইজিং সরকারিভাবে এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।

এরপরই দুই দেশের সেনারা কয়েক দফা বৈঠকে বসেন। গত বুধবার সীমান্ত উত্তেজনা নিরসনে ভারত ও চীনের সেনবাহিনীর লেফটেন্যান্ট-জেনারেল পর্যায়ের কর্মকর্তারা তৃতীয় দফার বৈঠকে বসেছিলেন। ১২ ঘণ্টা ধরে তারা আলোচনা করেছিলেন। সেই বৈঠকের ফলশ্রুতিতেই দুই দেশ সেনা সরিয়ে নিচ্ছে বলে জানিয়েছে ভারতের সংবাদ মাধ্যমগুলো।

ফই/সাহু/ফই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

LIVE

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশ

আক্রান্ত
২৩৪৮৮৯
সুস্থ
১৩২৯৬০
মৃত্যু
৩০৮৩
সূত্র:আইইডিসিআর

বিশ্ব

আক্রান্ত
১৭২১২৮৫৩
সুস্থ
১০৭২৬২০১
মৃত্যু
৬৭০৯০৩
সূত্র: ওয়ার্ল্ড মিটার
এন্ড্রু কিশোরের সেরা ৫ গান
চোখে মুখে মৌমাছি নিয়ে চার ঘণ্টা!
বলিউড, মানসিক চাপ, আত্নহনন
দ্রুত ভ্যাকসিন পৌঁছে দিতে চায় বিল গেটস ফাউন্ডেশন