34 C
Dhaka
বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৮, ২০২৪
spot_imgspot_img

গৌতম গম্ভীর ভারতের নতুন হেড কোচ

ভারতের প্রধান হেড কোচ হিসেবে রাহুল দ্রাবিড়ের স্থলাভিষিক্ত হবেন গৌতম গম্ভীর। আজ মঙ্গলবার ( ৯ জুলাই) ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) সচিব জয় শাহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ‘এক্স’-এ করা পোস্টে গম্ভীরকে নতুন প্রধান কোচ হিসেবে নিয়োগের সিদ্ধান্তের কথা নিশ্চিত করেছেন।

গৌতম গম্ভীর ভারতের হয়ে ২০০৭ সালে টি-২০ বিশ্বকাপ জিতেছেন, ২০১১ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপ জিতেছেন। নেতৃত্ব দিয়ে কলকাতা নাইট রাইডার্সকে ২ বার আইপিএল জিতিয়েছেন। এছাড়া, এই বছর একই দলকে কোচ হিসাবেও আইপিএল জিতিয়েছেন।

আধুনিক সময়ের ক্রিকেটের সঙ্গে মানিয়ে নেওয়ার সক্ষমতার কারণে তাকে কোচ করা হয়েছে বলে সামাজিক মাধ্যম ‘এক্স’-এ উল্লেখ করেন জয় শাহ।

তিনি লিখেছেন, ‘অনেক আনন্দের সঙ্গে গৌতম গম্ভীরকে ভারতীয় জাতীয় দলের নতুন হেড কোচ হিসেবে স্বাগত জানাচ্ছি। আধুনিক ক্রিকেট দ্রুত বদলে গেছে। গৌতম খুব কাছ থেকে এই পরিবর্তন লক্ষ্য করেছেন। ক্যারিয়ারে নানান অর্জন ও দায়িত্ব পালন করা গৌতম গম্ভীর ভারতের ক্রিকেটকে এগিয়ে নেওয়ার সঠিক ব্যক্তি বলেই আমরা মনে করি।’

এর আগে ভারতের হেড কোচ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন রাহুল দ্রাবিড়। তার অধীনে ভারত ঘরের মাঠে ওয়ানডে বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলেছে। আর টি-২০ বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়নও হয়েছে।

বিসিসিআই জানিয়েছিল, নতুন প্রধান কোচ চলতি জুলাই থেকে সাড়ে তিন বছরের জন্য জাতীয় দলের দায়িত্ব নিয়ে ২০২৭ সালের ডিসেম্বরে মেয়াদ পূর্ণ করবেন। তিন সংস্করণেই তিনি প্রধান কোচের দায়িত্ব পালন করবেন। ২৭ মে পর্যন্ত আবেদনের শেষ দিন নির্ধারণ করে বিসিসিআই প্রধান কোচের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছিল। সর্বশেষ আইপিএলে গৌতম গম্ভীরের সঙ্গে এ নিয়ে বিসিসিআইয়ের আলোচনা হয়। গম্ভীর তখন কলকাতা নাইট রাইডার্সের মেন্টর হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন।

প্রসঙ্গত, ২০২১ সালের নভেম্বরে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর রবি শাস্ত্রীর কাছ থেকে ভারতের প্রধান কোচের দায়িত্ব পান রাহুল দ্রাবিড়। তবে দ্রাবিড়ের মেয়াদ ছিল ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপ পর্যন্ত। পরে দ্রাবিড় চলতি বছরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত মেয়াদ বাড়াতে রাজি হন। শেষ পর্যন্ত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিতেই দ্রাবিড় শেষ করলেন তার ভারতের কোচ হওয়ার যাত্রা।

spot_img
spot_img

আরও পড়ুন

spot_img

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

বিশেষ প্রতিবেদন