ফিচার

দাম্পত্য সম্পর্ক যেভাবে জোরদার করবেন

আশা জাহিদ
গবেষক, মনের বন্ধু

দাম্পত্য একটি সুন্দর-একটি কার্যকর সম্পর্ক। স্বামী-স্ত্রীর ইতিবাচক ভূমিকা ভিন্ন মাত্রা দেয় দাম্পত্য সম্পর্ককে। একটি সুস্থ দাম্পত্য মানুষের জীবনকে যেমন ইতিবাচক উপায়ে জীবনকে  সামনে এগিয়ে নেয়ার জন্য অনুপ্রেরণা দেয়, তেমনি অসুস্থ দাম্পত্য মানুষের জীবনে তৈরি করে অনেক সমস্যা।

খুব সহজে দাম্পত্য সম্পর্ককে গভীরভাবে জীবনের অংশ হিসেবে ভাবা যায়। নানান উপায়ে দাম্পত্যকে একটি শক্তিশালী বন্ধন হিসেবে তৈরি করা যায়। চলুন জেনে নেই দাম্পত্যকে সুস্থ ও সুন্দর করে তুলতে যে উপায়গুলো অনুসরণ করতে পারেন।

নিজেকে পরিবর্তন করুন

মানুষের জীবন মানেই নিরন্তর পরিবর্তন। জীবন কখনো থেমে থাকে না। বেঁচে থাকার জন্য প্রতিদিনই আমাদের জীবনে কোনও না কোনও ইতিবাচক পরিবর্তন নিয়ে আসতে হয়। ইতিবাচক পরিবর্তন মানুষের জীবনকে সামনে এগিয়ে যেতে অনুপ্রেরণা দেয়, যে কারণে ইতিবাচক মানুষরা অন্যদের আকর্ষণ করে।

আপনার সঙ্গীকে গুরুত্ব দিন। আপনার স্ত্রী বা স্বামীর ভাবনাকে সম্মান দিন। তার জীবনকে অনুপ্রাণিত করুন। সঙ্গী বিনিময়ে কি করছে তা না ভেবে, আপনি কি করছেন তা চিন্তা করুন। সেভাবে এখন থেকেই কাজ শুরু করুন।

কথা বলুন

আমরা সাধারণত দাম্পত্য সম্পর্কে কোন সংকট তৈরি হলে পরস্পর কথা বলা বন্ধ করে দেই। যা কখনোই করা উচিত নয়। যেকোনো সময় যেকোনো সমস্যায় সঙ্গীর সাথে কথা বলুন। সঙ্গীর কথা বোঝার চেষ্টা করুন। আপনার কথা যদি আপনার সঙ্গী না বুঝে, তাহলে কিভাবে তাকে যেভাবে বুঝিয়ে বলা যায় তা জানার চেষ্টা করুন। নিজেকে প্রকাশ করুন। নিজের অভিমান, নিজের রাগ, নিজের কষ্টের কথা সঙ্গীকে জানান। তেমনি সঙ্গীর কথা শুনুন।

শতকরা ৭০ ভাগ দাম্পত্য সম্পর্ক সংক্রান্ত সমস্যা পরস্পর কথা বলার মাধ্যমে সমাধান করা যায় বলে বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে।

ভিন্নমত মানিয়ে নিন

আপনার সঙ্গী আপনার মতোন নাও হতে পারে। কিংবা আপনার সঙ্গী আপনার মতামতকে সমর্থন নাও দিতে পারে। সঙ্গীর ভিন্নমতকে মানিয়ে নিন, আলাপ করুন। অন্যর কথা ও মতামতকে শ্রদ্ধা করুন। নিজের কথা প্রকাশ করুন। যৌক্তিক সম্পর্ক প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে দাম্পত্য সম্পর্ক উন্নয়নে জোর দিন।

পরস্পরকে শ্রদ্ধা করুন

আপনার সঙ্গীকে সব সময় শ্রদ্ধা করুন। তার মতামত, তার পছন্দ তার ভালো লাগাকে শ্রদ্ধা করুন। কোনো ধরনের পারিবারিক সিদ্ধান্ত জোর করে তার ওপরে কখনোই কিছু চাপিয়ে দিতে যাবেন না। দুজনে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমঝোতা তৈরি করে সিদ্ধান্ত নিন।

ইতিবাচক সম্পর্ক তৈরিতে মনোযোগ দিন

নিজের দাম্পত্য সম্পর্কে ইতিবাচকতা আনার জন্য নিজেকে ইতিবাচকভাবে তৈরি করুন। আপনার সঙ্গীকে উৎসাহ দিন। সঙ্গীর প্রশংসা করুন। যেকোনো ভুল বা সমস্যায় তাকে পরামর্শ দিন। তার পেশা কিংবা তার কোনো ব্যক্তিগত সিদ্ধান্তে, শারীরিক কোনো সমস্যায় তাকে বন্ধু হিসেবে পরামর্শ দিন। আপনার যেকোনো সমস্যায় কিংবা যেকোনো দ্বিধায় নির্ভয়ে আপনার সঙ্গীকে আপনার কথা বলুন। সম্পর্কে ইতিবাচকতা আনার জন্য দুজন দুজনের পরিপূরক হয়ে উঠুন।

দ্রুত সহায়তা নিন

দাম্পত্য এমন একটি সম্পর্ক যেখানে ছোট ছোট সংকট তৈরি হবেই। দাম্পত্য সম্পর্কিত সমস্যা দ্রুত সমাধানের জন্য ম্যারেজ কাউন্সেলর কিংবা অভিজ্ঞদের পরামর্শ নিন।

LIVE


নিজের মৃত্যু কামনা করছে শিশুটি!
যেভাবে বাড়াবেন আত্মবিশ্বাস
মিনি মাফলারম্যান ও একজন অরবিন্দ কেজরিওয়াল
টাটকা রাখুন মশলাপাতি