আলোচিত, খেলা, বাংলাদেশ , ,

নিজের অতীত ভুলে সাকিবকে দুষছেন গাভাস্কার

১৯৮১ সালে অস্ট্রেলিয়া-ভারতের মধ্যে অনুষ্ঠিত মেলবোর্ন টেস্টে ঘটেছিলো একটি কান্ড। আগের ১০ ইনিংসে কোনো ফিফটি না পাওয়া গাভাস্কার দ্বিতীয় ইনিংসে খেলছিলেন দারুণ। নামের পাশে যখন ৭০ রান ঠিক তখনই ডেনিস লিলির একটি বলে এলবিডব্লুর আবেদনে সুনীল গাভাস্কারকে আউট দিয়েছিলেন আম্পায়ার রেক্স হোয়াইট। কিন্তু গাভাস্কারের দাবি ছিল বলটি ব্যাট হয়ে প্যাডে লেগেছে। তাই তিনি আম্পায়ারের প্রতিবাদ জানিয়ে উইকেটে থাকা অন্য সঙ্গী আরেক ব্যাটসম্যান চেতন চৌহানকে নিয়েই মাঠ ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করেই। অবশ্য চৌহান সীমানা পেরোনোর আগেই তাঁকে থামিয়ে দেন তখনকার ভারতীয় দলের ম্যানেজার। সেদিন চৌহান যদি গাভাস্কারের সঙ্গে মাঠ ছেড়ে বেরিয়ে যেতেন, হয়তো ম্যাচটা আর হতো না, শাস্তি পেতে পারত ভারত।

১৬ মার্চ ২০১৮। আম্পায়ারের ভুল বা অন্যায় সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছেন একজন বাংলাদেশী অধিনায়ক। কলম্বোর প্রেমাদাসা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা ম্যাচের শেষ ওভারে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়েগিয়েছিল। পর পর দুটি বাউন্সারে শ্রীলঙ্কান আম্পায়াররা নো বল না দেয়ায় উত্তেজিত হয়ে পড়েন টাইগার অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। বাউন্ডারি সীমানার কাছে এসে মাঠ থেকে ব্যাটসম্যানদের চলে আসার ইঙ্গিত দিয়েছিলেন সাকিব। পরে ম্যাচ শেষে সাকিব শিকারও করে নিয়েছেন যা ঘটেছিল মাঠে সেটি করা উচিৎ হয়নি, মাথা ঠাণ্ডা রাখা দরকার ছিল।

কিন্তু সাকিবের আচরণের কড়া সমালোচনা করে মন্তব্য করেছেন ১৯৮১ সালে সেই টেস্টে আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে মাথা নাড়তে নাড়তে মাঠ থেকে বেরিয়ে যাওয়া সুনীল গাভাস্কার। সাকিবের সর্বোচ্চ শাস্তি চেয়ে আইসিসির কাছে নালিশ করেছেন তিনি।

তিনি বলেছেন, “যেটা হয়েছে সেটা ভাল কিছু ছিল না। আইসিসিকে এই বিষয়ে আরো কঠোর হতে হবে। সাকিব মাঠের আম্পায়ারের ডিসিশনকে অমান্য করেছে তার বিচার হওয়া উচিত। তাদের বোর্ডেরও উচিত এই বিষয়ে সবাইকে সতর্ক করা।”

শুধু গাভাস্কার নয়, সাকিবের আচরণ নিয়ে প্রশ্ন তুলে তার স্বদেশী সঞ্জয় মাঞ্জেরেকারও।

টুর্নামেন্টে বাজে আম্পেয়ারিং নিয়ে তারা কোনো মন্তব্য করছেন না। গাভাস্কার করলে সেটা প্রতিবাদ, সাকিব করলে বেয়াদবি? সাকিবের দিকে আঙুল তোলা যায়, কিন্ত বাজে আম্পায়ারিং নিয়ে কেউ আঙুল তুলছে না কেন? এ নিয়ে সামাজিক মাধ্যমগুলোতে বাংলাদেশের ক্রিকেট অনুরাগীরা গাভাস্কার, মাঞ্জেরেকারের সমালোচনা করছেন। গাভাস্কার ও রানাতুঙ্গার সে ম্যাচগুলোর ভিডিও পোস্ট করে সাকিবের এই প্রতিবাদ যে কোনো বেয়াদবি ছিল না তা মনে করিয়ে দিচ্ছেন।

LIVE
বাংলাদেশে ২০১৯ সালের সেরা অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা
বুনোপ্রাণীর দেশ গাম্বিয়া
অভিবাসন প্রত্যাশীদের নিয়ে অভিনব প্রতারণা
কলার দাম ১ কোটি ১ লাখ ৭৬ হাজার টাকা!