বাংলাদেশ, শীর্ষ খবর

নির্মাণাধীন ভবনে মশার প্রজনন রোধে মোবাইল কোর্ট

রাজধানীর নির্মাণাধীন ভবনগুলোতে এডিস মশার প্রজনন রোধে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে মোবাইল কোর্ট (ভ্রাম্যমাণ আদালত) পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)।

 

সোমবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে ঢাকা শিশু হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত চিকিৎসাধীন শিশুদের দেখতে গিয়ে এ ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত জানান ডিএসসিসি মেয়র সাঈদ খোকন।

 

এসময় সাঈদ খোকন জানান, ‘যেসব ভবনে এডিস মশার প্রজনন স্থল বা প্রজনন হতে পারে এমন পরিবেশ পাওয়া যাবে, সেগুলোর মালিকের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

 

তিনি আরও বলেন, ডিএসসিসি দেখেছে, ‘নির্মাণাধীন ভবনে ডেঙ্গু ও চিকুনগুনিয়া রোগের বাহক এডিস মশার প্রজনন অন্যান্য জায়গার চেয়ে বেশি। বিভিন্ন ভবন মালিকদের আমরা এ বিষয়ে সচেতন হতে বলেছি এবং তাদের সতর্ক থাকতে বলেছি; যেনো তাদের ভবনে এডিস মশা প্রজননের পরিবেশ সৃষ্টি না হয়।’

 

ডিএসসিসি মেয়র বলেন, ‘বাস্তবতা হচ্ছে, তারা এ বিষয়ে আমাদের সহযোগিতা করছেন না। তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, এসব ভবনে প্রয়োজনে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হবে। আর যেসব ভবনে এডিস মশার প্রজনন স্থল বা লার্ভা পাওয়া যাবে, সেসব ভবন মালিকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

 

তিনি আরও বলেন, ‘আমি ভবন মালিকদের কাছে অনুরোধ করবো, যেকোনো অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়ানোর জন্য আপনারা যেনো স্ব স্ব ভবন থেকে এমন প্রজনন স্থল ধ্বংস করে দেন।’

 

মেয়র জানান, আমাদের পাঁচটি অঞ্চলের পাঁচজন আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা এবং নিজস্ব ম্যাজিস্ট্রেট ছাড়াও অনেক কর্মকর্তার ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা আছে। তাদের ইতোমধ্যেই মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যতোদিন না ডেঙ্গু পরিস্থিতি স্বাভাবিক হচ্ছে, ততোদিন মোবাইল কোর্ট পরিচালনা চলবে।

 

সাঈদ খোকন বলেন, ১৫ দিনে নগরীর ২৫ হাজার বাসা থেকে লার্ভা ধ্বংসের পরিকল্পনা রয়েছে আমাদের। এর পাশাপাশি নগরবাসীদের আমরা লার্ভা ধ্বংসের প্রক্রিয়া সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দিচ্ছি। যেনো তারা নিজেরাও এই কাজ করতে পারে।

 

ফই/জার/ফই

 

 

LIVE
Play
ছুটিতে ওবামা যে বইগুলো পড়বেন
বাণিজ্যযুদ্ধের লাভ-ক্ষতি
৭০ বছরের পুরোনো ভূতুড়ে ছবির রহস্য!
উসাইন বোল্টের গতির তুলনা!