ফিচার

মার্টিন শিনের কণ্ঠে রবীন্দ্রনাথের কবিতা

প্রতিবাদের মঞ্চে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কবিতা উদ্ধৃত করলেন অভিনেতা মার্টিন শিন।

পরিবেশ রক্ষার ডাক দিয়ে ‘ফায়ার ড্রিল ফ্রাইডেস’ নামে প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করেন অভিনেতা জেন ফন্ডা। গত শুক্রবার সেখানেই ‘হোয়্যার দ্য মাইন্ড ইজ উইদাউট ফিয়ার’ উদ্ধৃত করেন শিন। যা রবি ঠাকুরের ‘চিত্ত যেথা ভয়শূন্য, উচ্চ যেথা শির’ এর ইংরেজি অনুবাদ।

ভারতের স্বাধীনতার আগে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এই কবিতাটি লিখেছিলেন। এটি রবীন্দ্রনাথের নতুন এবং জাগ্রত ভারত সম্পর্কে দৃষ্টিভঙ্গির প্রতিনিধিত্ব করে। মূল কবিতাটি ১৯১০ সালে প্রকাশিত হয় এবং ১৯১০ সালের গীতাঞ্জলিতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। ১৯২১ সালে রবীন্দ্রনাথের নিজের ইংরেজি অনুবাদ সংস্করণে অন্তর্ভুক্ত করা হয়। গীতাঞ্জলি কাব্যগ্রন্থের জনপ্রিয় কবিতারগুলির মধ্যে এই কবিতাটি অন্যতম।

সমাবেশের কিছুক্ষণ পরেই গ্রেপ্তার হন তিনি এবং জোয়াকিন ফিনিক্স। ইউএস ক্যাপিটাল পুলিশ জানিয়েছে, শুক্রবারের প্রতিবাদ কর্মসূচিতে মোট ১৪৭ জনকে আটক করা হয়েছে।

জেন ফন্ডা বক্তব্য রাখার পরে মঞ্চে উঠে নারীদের প্রশংসামূলক কথা দিয়ে বক্তব্য শুরু করেন শিন। তাঁর কথায়, ‘পৃথিবীটাকে যে নারীরাই বাঁচাতে পারবেন, তা এক রকম পরিষ্কার।’ ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য একটি আইরিশ হিতোপদেশের গল্পও বলেন তিনি। এরপরেই রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কবিতার ওই বিখ্যাত পঙ্‌ক্তি উদ্ধৃত করেন তিনি। কবির নাম উল্লেখ না করে গোটা কবিতাটাই তিনি আবৃত্তি করেছেন।

এটাই অবশ্য প্রথম নয়। ২০১৬-তেও দেশের উন্নয়নের স্বার্থে নাগরিকদের ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে কবিগুরুর কবিতা আবৃত্তি করেছিলেন মার্টিন শিন।

এর আগে ২০১০ সালে ভারতীয় সংসদে দেওয়া ভাষণে যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা এই কবিতার লাইন উদ্ধৃত করেছিলেন।

LIVE


মোবাইল-টিভিতে চোখ, কতটা ক্ষতি হচ্ছে শিশুর!
কেন নেবেন কাউন্সেলিং সেবা?
টেইলর সুইফটের প্রতিদিনের রুটিন
আমাজন রেইন ফরেস্টের নিধন বেড়েছে ৮৫ শতাংশ