বাংলাদেশ, শীর্ষ খবর , ,

রেল কর্তৃপক্ষও এবার দুঃখিত

এবার ট্রেনে চেপে ঈদযাত্রায় এমন পরিস্থিতি যে, সূচি বিপর্যয় আর ঠেকানোই গেলো না। ইতিমধ্যে হার মেনেছে কর্তৃপক্ষ। তারা বলে দিয়েছে, ঈদের আগে ট্রেনের সূচি মেনে চলা সম্ভব নয়।

 

অব্যাহত সূচি বিপর্যয়ে নাভিশ্বাস উঠেছে উত্তর ও দক্ষিণ-পশ্চিমের তিন বিভাগের যাত্রীদের। বাতিল করা হয়েছে লালমনি স্পেশ্যাল ট্রেনের যাত্রা। সেজন্য দুঃখ প্রকাশ করে রেল সচিব মোজাম্মেল হোসেন বলেছেন, যাত্রা বাতিল হওয়া লালমনি স্পেশালের যাত্রীদের টিকেটের টাকা ফেরত দেয়া হবে।

 

রেল সচিব বলেন, ‘অনেকেই হয়তো ঈদে বাড়ি যেতে পারবেন না। এজন্য দুঃখ প্রকাশ করছি। আমরা সবসময় সব যাত্রীদের নিরাপদে বাড়িতে নিয়ে যেতে চাই।’

 

শুক্র ও শনিবার- দুই দিনই শিডিউল বিপর্যয়ে বিপাকে পড়তে হয়েছে উত্তর ও দক্ষিণ-পশ্চিমের রেলযাত্রীদের।

 

শুক্রবার খুলনাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস টাঙ্গাইলে বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব পাশে লাইনচ্যুত হলে ট্রেন বন্ধ থাকে সাড়ে তিন ঘণ্টা। রেল কর্তৃপক্ষ বলছিলো, এটাই সূচি বিপর্যয়ের কারণ।

 

রোববার পরিস্থিতি আরও খারাপ হওয়ার পর রেল সচিব বলেন, ওই দুর্ঘটনার পাশাপশি অতিরিক্ত যাত্রীর চাপের কারণে ট্রেনগুলো নির্ধারিত গতিতে যেতে পারছে না। আর সময়মত কমলাপুরে না ফেরায় সূচি ঠিক রাখা সম্ভব হচ্ছে না।

 

এমন পরিস্থিতিতে বেশকটি ট্রেনের যাত্রীদের অন্য ট্রেনে তুলে দেয়া হয়েছে। এসব ট্রেনে দেখা গেছে উপচেপড়া ভিড়। ট্রেনে উঠতেই নাভিশ্বাঃস উঠছে যাত্রীদের।

 

‘ট্রেন ট্র্যাকিং মনিটরিং সিস্টেম’ও কাজ করছে না। ফলে কমলাপুরে অপেক্ষায় থাকা যাত্রীরা ১৬৩১৮ নম্বরে এসএমএস করে ট্রেনের অবস্থান জানতে পারছেন না।

 

শাই

LIVE
বাংলাদেশে ২০১৯ সালের সেরা অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা
বুনোপ্রাণীর দেশ গাম্বিয়া
অভিবাসন প্রত্যাশীদের নিয়ে অভিনব প্রতারণা
কলার দাম ১ কোটি ১ লাখ ৭৬ হাজার টাকা!