দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ৬১১ জন। ৩২ মৃতের মধ্যে ২৫ জন পরুষ আর নারী ৭ জন। ♦♦ নতুন ৩২ জনের মৃত্যুর ফলে দেশে মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ৩ হাজার ৩৬৫ জনে। নতুন ২ হাজার ৬১১ জনসহ মোট আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৫৫ হাজার ১১৩ জন। ♦♦ ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ২০ জন। আর মোট সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ১ লাখ ৪৬ হাজার ৬০৪ জন। ♦♦ করোনা উপসর্গ দেখা দিলে অথবা করোনা বিষয়ক জরুরি স্বাস্থ্যসেবা পেতে ৩৩৩ অথবা ১৬২৬৩ নম্বরে কল করুন এবং তথ্য পেতে www.corona.gov.bd ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন।। এ ছাড়া আইইডিসিআরের ইমেইল বা ১৬২৬৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। ♦♦ www.livecoronatest.com এ আপনি ঘরে বসেই কোভিড-১৯ বা নভেল করোনা ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত কি'না, তা নিজেই মূল্যায়ন করতে পারবেন। এমনকি আপনার ঝুঁকির মাত্রা ও করনীয় সম্পর্কেও জানতে পারবেন।

বাংলাদেশ

শান্তি চুক্তির পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন চায় পাহাড়িরা

পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তিচুক্তির ২২ বছর আজ। এতগুলো বছর কেটে গেলেও এখনো অশান্ত পাহাড়। চুক্তি বাস্তবায়ন নিয়ে বিতর্ক শেষ হয়নি। দিন দিন আরও অশান্ত ও রক্তাক্ত হয়ে উঠছে পার্বত্য অঞ্চল।

পার্বত্য চট্টগ্রামে প্রায় দু’দশকের সংঘাত বন্ধে ১৯৯৭ সালের ২ ডিসেম্বর ঢাকায় সরকার এবং পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির মধ্যে পার্বত্য চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল।

শান্তি চুক্তি স্বাক্ষরের ২২ বছর পেরিয়ে গেলেও পাহাড়িদের মধ্যে চুক্তি বাস্তবায়ন নিয়ে রয়েছে নানা বিতর্ক। স্থানীয়দের অভিযোগ, চুক্তির মূল ধারাগুলো আজো বাস্তবায়ন হয়নি। তরুণরা মনে করে, শান্তি চুক্তির পরও পক্ষে বিপক্ষে বিভেদ তৈরি হওয়ায় বাস্তবায়ন প্রক্রিয়াকে থমকে গিয়েছে।

চাকমা সার্কেল প্রধান রাজা ব্যারিষ্টার দেবাশীষ রায় বলেন, ১৯৯৭ সালে যেভাবে পার্বত্য শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরিত হয়, সেভাবেই চুক্তি পুর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন হলে সংকট নিরসন সম্ভব।

পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি সভাপতি জ্যোতিরিন্দ্র বোধিপ্রিয় লারমা ওরফে সন্তু লারমা জানান, শান্তিচুক্তি পুর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন না হলে পাহাড়ের সমস্যা কোন দিনও সমাধান হবেনা।

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা সংসদ সদস্য দীপংকর তালুকদার বলেন, শান্তিচুক্তির পক্ষের নিরীহ মানুষদের খুন, অপহরণ করে যে নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করা হয়েছে, তাতে শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন বাধাগ্রস্থ হচ্ছে।

রাঙ্গামাটি গণমাধ্যম কর্মী সুনীল কান্তি দে জানান, পার্বত্যচুক্তি পূর্নাঙ্গ বাস্তবায়ন করতে হলে চুক্তি স্বাক্ষরকারী দুপক্ষকেই এগিয়ে আসতে হবে।

পাহাড়ের বিরাজমান সংঘাত বন্ধে সরকার ও জনসংহতি সমিতি দু’পক্ষই আলোচনার মাধ্যমে কার্যকর পদক্ষেপ নেবে এমন প্রত্যাশা পাহাড়ের শান্তিপ্রিয় মানুষের।

ফিরোজ হোসেন/ফই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

LIVE

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশ

আক্রান্ত
২৫৫১১৩
সুস্থ
১৪৬৬০৪
মৃত্যু
৩৩৬৫
সূত্র:আইইডিসিআর

বিশ্ব

আক্রান্ত
১৯৫৬৯১০৯
সুস্থ
১২৫৬৩৪০০
মৃত্যু
৭২৪৫৫০
সূত্র: ওয়ার্ল্ড মিটার
বৈরুত বিস্ফোরণের অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট কী পদার্থ?
এন্ড্রু কিশোরের সেরা ৫ গান
চোখে মুখে মৌমাছি নিয়ে চার ঘণ্টা!
বলিউড, মানসিক চাপ, আত্নহনন