আন্তর্জাতিক, আলোচিত, বাংলাদেশ

সুইডেন কি অ্যাসাঞ্জের বিচার করবেই?

উইকিলিকস প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে সুইডেনে বন্ধ হয়ে যাওয়া ধর্ষণের মামলা আবারো সচল হতে পারে। এ মামলায় ফের তদন্ত শুরু করা হবে কি না, সে বিষয়ে আজ (সোমবার) সিদ্ধান্ত জানাবেন দেশটির সরকারি কৌঁসুলি ইভা ম্যারি পারসন।

 

মামলা দায়েরকারীর আইনজীবীর অনুরোধেই এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হচ্ছে।

 

অ্যাসাঞ্জ লন্ডনের ইকুয়েডর দূতাবাসে আশ্রিত থাকার কারণে অগ্রগতি না থাকায় বছর দুয়েক আগে মামলাটির তদন্ত বাদ রাখা হয়।

 

অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক অ্যাসাঞ্জ ২০১০ সালে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের লাখ লাখ সামরিক ও কূটনৈতিক গোপন নথি ফাঁস করে দিয়ে বিশ্বজুড়ে হৈচৈ ফেলে দিয়েছিলেন।

 

এ নিয়ে আলোচনার মধ্যে সুইডেনে অ্যাসাঞ্জের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়। অভিযোগ অ্যাসাঞ্জ বরাবরই অস্বীকার করেছেন।

 

২০১২ সালে গ্রেপ্তার এড়াতে অ্যাসাঞ্জ লন্ডনের ইকুয়েডর দূতাবাসে আশ্রয় নেন।

 

সাত বছর আশ্রিত থাকার পর, গত ১১ এপ্রিল অ্যাসাঞ্জের রাজনৈতিক আশ্রয় বাতিল করে দেয় ইকুয়েডর। সেদিনই তাকে গ্রেপ্তার করে ব্রিটিশ পুলিশ। জামিনের শর্ত ভাঙায় তাকে ৫০ সপ্তাহের জেলও দিয়েছে ব্রিটিশ আদালত।

 

এমন পরিস্থিতিতে সুইডেনে ধর্ষণের মামলা দায়েরকারী এখন ফের তদন্ত চান। এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রও অ্যাসাঞ্জকে দেশে নিয়ে তার বিচার করতে চায়। ইতিমধ্যে বিষয়টি যুক্তরাজ্যকে জানিয়েছে ওয়াশিংটন।

 

জুলিয়ান অ্যাসাঞ্জ শঙ্কা প্রকাশ করে আসছেন, সুইডেন বা যুক্তরাষ্ট্র, যে দেশের হাতেই তাকে হস্তান্তর করা হোক না কেনো, কোনো দেশেই ন্যায়বিচার পাবেন না তিনি।

 

শিআ/শাই/ফই
LIVE
Play
ছুটিতে ওবামা যে বইগুলো পড়বেন
বাণিজ্যযুদ্ধের লাভ-ক্ষতি
৭০ বছরের পুরোনো ভূতুড়ে ছবির রহস্য!
উসাইন বোল্টের গতির তুলনা!