বাংলাদেশ, শীর্ষ খবর

স্বপ্নদর্শী আনিসুল হকের জন্মদিন আজ

দীপ আজাদ
বার্তা প্রধান, নাগরিক টিভি

কথা দিয়েছিলেন একটি মানবিক ঢাকা তৈরি করবেন। সকলে মিলে একটি পরিচ্ছন্ন শহর গড়ে তুলবেন।

অনেকেই ক্ষমতার মসনদে বসলে ভুলে যান নিজের দেওয়া ওয়াদা। তবে ৪০০ বছরের পুরাতন ঢাকা এমন একজন মানুষকে পেয়েছিল যিনি ঢাকা উত্তরের মেয়র হওয়ার পর হয়ে উঠেছিলেন সাধারণের একজন।

নগরপিতাকে হারিয়ে কাঁদেছে নগরবাসী। অনেকে কাঁদে এখনও, হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছে প্রতিনিয়ত। পুরোদস্তুর রাজনৈতিক ছিলেন না কিন্তু উন্নয়ন আর ভালোবাসা দিয়ে রাজনৈতিক মাঠেও আপন হলেন। যে উদ্যোগ আর উন্নয়নের পসরা সাজিয়ে নগরবাসীর মন জয় করেছিলেন প্রয়াত মেয়র আনিসুল হক।

২০১৭ সালের ৩০ নভেম্বর আশাজাগানিয়া এক পাখি কোটি মানুষকে বিদায় জানিয়ে আকাশের নীড়ে বাসা বাঁধেন।

যিনি স্বপ্ন দেখতেন, স্বপ্ন দেখাতেন, স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতেন সেই সফল মানুষ, সফল ব্যবসায়ী, টেলিভিশনের জনপ্রিয় উপস্থাপক, উদ্যোক্তা আনিসুল হকের আজ জন্মদিন।

আনিসুল হকের জন্ম ১৯৫২ সালের আজকের এইদিনে নোয়াখালি জেলার কোম্পানীগঞ্জে। তার শৈশবের বেশ কিছু সময় কাটে তার নানাবাড়ি ফেনী জেলার সোনাগাজীর আমিরাবাদ ইউনিয়নের সোনাপুর গ্রামে। আনিসুল হক রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক(সম্মান) ডিগ্রী অর্জন করেন এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতি বিষয়ে পড়াশোনা সম্পন্ন করেন।

নেতৃত্ব তার সহজাত গুনাবলী। পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ ও দেশের ব্যবসায়ীদের সবচেয়ে বড় সংগঠন এফবিসিসিআইএ এর নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। বাংলাদেশের লাল সবুজ পতাকা নিয়ে সার্ক চেম্বারের শীর্ষ পদে ছিলেন আনিসুল হক।

২০১৫ সালে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আনিসুল হক আওয়ামী লীগ থেকে মেয়র পদের জন্য মনোনয়ন লাভ করেন এবং বিজয়ী হন।

জয়ী হয়ে নেমে পড়েন তাঁর দেওয়া কথা রাখতে। তেজগাঁয়ে অবৈধ ভাবে রাস্তা দখল করে ট্রাক স্ট্যান্ড গড়ে তোলা হয়েছিল। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে স্ট্যান্ডে গিয়ে দখল হওয়া রাস্তা উদ্ধারে অংশ নেন। করাইল বস্তিতে আগুণ লাগার পর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের সাথে নিজেও আগুণ নেভাতে চেষ্টা করেন। শহরবাসী এর আগে এমন জনপ্রতিনিধি দেখেননি।

অবৈধভাবে দখলে রাখা ফুটপাথ উদ্ধারে হাত দেন। সেই হাতের ছোঁয়া থেকে বিরত ছিলনা বিদেশী দূতাবাস।

ইউলুপ তৈরির উদ্যোগ নিয়েছিলেন। ভেবেছিলেন ইউলুপ তৈরি করে নগরবাসীকে যানজটের ভোগান্তি থেকে মুক্তি দিবেন।

সড়কের বিভিন্ন জায়গায় এবং স্কুল কলেজের সামনে ফুটওভারব্রীজ নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছিলেন। ওভার ব্রীজগুলোতে ফুলের টব বসিয়ে দিয়েছিলেন।

স্বাধীনতাবিরোধী মোনায়েম খানের পরিবারের অবৈধ দখল থেকে ১৪ কাঠা জমি উদ্ধার করেছিল ডিএনসিসি আনিসুল হকের নেতৃত্বে।

রাস্তায় প্রয়োজনীয় আলো ও নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে এলইডি বাতি ও সিসি ক্যামেরা বসানোর প্রকল্প নিয়েছিলেন প্রয়াত মেয়র।

নগরীতে পাবলিক টয়লেটের বড্ড অভাব। রাজধানীতে গণশৌচাগারের তীব্র সংকট থেকে উত্তরণে মেয়র ১০০টি আধুনিক গণশৌচাগার নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছিলেন।

গণপরিবহন খাতে শৃঙ্খলা ফেরাতে চার হাজার বাস নামানোর উদ্যোগ নিয়েছিলেন জনতার মেয়র আনিসুল হক।

শহরের অন্ধকার অলি-গলিতে সোডিয়ামের আলো জ্বলে। যিনি অন্ধকার দূরে করে শহরে আলো বিলিয়েছেন, পরিচ্ছন্নতার জন্য সিটি করপরেশনের পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের বেতন বাড়িয়েছেন, একটি সবুজ ঢাকা গড়ার জন্য যিনি উদ্যোগ নিয়েছিলেন, কাছ থেকে না হলেই সেই আলো ঝলমলে শহর তিনি দূর আকাশে বসে হলেও দেখেন।

সচেতন নাগরিকরা মিলে তৈরি করুক একটি মানবিক ঢাকা, সবুজ ঢাকা এটাই হবে আনিসুল হকের জন্মদিনে বড় উপহার।

আগমনী শুভেচ্ছা আনিসুল হক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

LIVE

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশ

আক্রান্ত
২৫৭৬০০
সুস্থ
১৪৮৩৭০
মৃত্যু
৩৩৯৯
সূত্র:আইইডিসিআর

বিশ্ব

আক্রান্ত
১৯৮২৪০৩৯
সুস্থ
১২৭৩২৫৪৬
মৃত্যু
৭২৯৯১০
সূত্র: ওয়ার্ল্ড মিটার
আজ জহির রায়হানের জন্মদিন
বৈরুত বিস্ফোরণের অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট কী পদার্থ?
এন্ড্রু কিশোরের সেরা ৫ গান
চোখে মুখে মৌমাছি নিয়ে চার ঘণ্টা!