আন্তর্জাতিক, আলোচিত, বাংলাদেশ, বিচিত্র বিশ্ব

১৩ মাসে বছর!

নতুন বছর ঘিরে পৃথিবী জুড়ে কত যে আয়োজন চলে। নতুন বছর মানেই নিত্য-নতুন স্বপ্ন, নতুন ক্লাস, নতুন বন্ধু, নতুন বই পাওয়ার আনন্দ। ৩১ ডিসেম্বর রাতে সারা বিশ্বে থার্টি ফার্স্ট নাইট পালন করা হয়।

জেনে নিন নতুন বছর নিয়ে ভিন্ন ধারার কিছু তথ্য:

১.

বিশ্বের সব দেশে ১২ মাসে বছর হলেও একমাত্র ইথিওপিয়ায় ১৩ মাসে বছর। সে দেশে বছর শুরু হয় ১১ সেপ্টেম্বর থেকে!

২.

কোরিয়াতে জন্ম নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই শিশুকে এক বছর বয়সী ধরা হয়। সুতরাং, আপনি যদি ৩০ ডিসেম্বরেও জন্মগ্রহণ করেন, তাহলে পরের বছরের ১ জানুয়ারিতে আপনাকে দুই বছর বয়সী হিসেবে গণ্য করা হবে।

৩.

প্রাচীনকালে হাওয়াইয়ান নতুন বছরের উত্সব চলত চার মাসব্যাপী। সেই সময়ে সব ধরনের যুদ্ধ নিষিদ্ধ ছিল। মজার ব্যাপার হচ্ছে, নববর্ষ উদ্যাপনের এই চার মাসে মানুষ কাজ করা বন্ধ করে দিয়ে নাচ, গান আর অন্যান্য আমোদে মেতে থাকত।

৪.

১৭৫৩ সালের আগ পর্যন্ত ব্রিটেনে নববর্ষ উদযাপন করা হতো ২৫ মার্চ।

৫.

প্রতি বছর রাশিয়াতে দুইবার নববর্ষ পালন করা হয়। প্রথমবার জানুয়ারির ১ তারিখ এবং দ্বিতীয়বার জানুয়ারির ১৪ তারিখ।

৬.

জাপানের আকিতা শহরে নতুন বছর উদযাপনে দারুণ একটা কাজ করা হয়। সেখানে ছেলেরা পাহাড়ের দানব সেজে ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের ভীষণ ভয় দেখায়। কারণ, তাদের অনেকের ধারণা ছোট ছোট ছেলেমেয়েরা বাবা-মায়ের কথা শোনে না আর খুব অলসেমি করে।

৭.

ফরাসি বিপ্লবের পর ফরাসিরা ছোট্ট পরিসরে একটি ক্যালেন্ডার প্রণয়ন করেছিল, যেখানে ১০ দিনে এক সপ্তাহ, ১০ ঘণ্টায় এক দিন, ১০০ মিনিটে এক ঘণ্টা এবং ১০০ সেকেন্ডে এক মিনিট ধরা হয়েছিল। এভাবে তারা এক বছর পার করেছিল!

৮.

ডেনমার্কের মানুষ নববর্ষ উদযাপনের দিন অন্যের ঘরের দরজার সামনে খাবার ছড়িয়ে ছিটিয়ে নোংরা করে। তারা মনে করে, যার দরজায় যত বেশি খাবার পড়বে সে তত বেশি নতুন বন্ধু পাবে।

৯.

জাপানিরা নতুন বছর উদযাপনের দিন লম্বা আকারের নুডলস খায়। তারা মনে করে, এতে তাদের আয়ু লম্বা হবে।

১০.

চায়নাতে নতুন বছরের উত্সব উপলক্ষে ১৫ দিনের সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়। এটিই বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা সরকারি ছুটি।

ফই/সাহু/ফই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

LIVE

হেঁচকি ওঠার কারণ ও কমানোর উপায়
মশা তাড়াতে যেসব উপকরণ ব্যবহার করা যায়
গ্রিন টির ভালো-মন্দ
পাহাড়ের ভাষা, সমতলের ভাষা