আন্তর্জাতিক, আলোচিত, প্রযুক্তি

যুক্তরাষ্ট্রে দুই ইরানি ‘স্যামস্যাম হ্যাকার’ অভিযুক্ত

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন স্কুল, বিশ্ববিদ্যালয়, হাসপাতাল এমনকি কয়েকটি সরকারি অফিস ৩৪ মাস ধরে র‍্যানসমওয়্যার অ্যাটাকের শিকার হয়েছিলো। অবশেষে যুক্তরাষ্ট্রের আইন প্রয়োগকারী সংস্থা দুই ইরানিকে এ কাজের জন্য অভিযুক্ত করেছে।

 

অভিযুক্ত দুই ইরানি ফারামারজ শাহি সাভান্দি ও মোহাম্মদ মেহদি শাহ মনসুরি বর্তমানে নিজেদের দেশে থাকায় তারা যুক্তরাষ্ট্রের আইনের আওতার বাইরে আছে। তবে তারা ইরান থেকে বের হলে অথবা অন্য কোনো পন্থায় তাদেরকে আটক করার উপায় খুঁজছে এফবিআই। দেশটির সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল ব্রায়ান বেনচকাওস্কি এ সাইবার হামলাকে একুশ শতকের ডিজিটাল ব্ল্যাকমেইল বলে অভিহিত করেছেন।

 

র‍্যানসমওয়্যার অ্যাটাকে কোনো কম্পিউটার সিস্টেমে ক্ষতিকর সফটওয়্যার ইনস্টল করে সেখানে থাকা যাবতীয় ফাইল ও সিস্টেম আটকে ফেলা হয়। এরপর সেসব আনলক করার ‘বিনিময়ে’ কম্পিউটার সিস্টেমের মালিকের কাছ থেকে অর্থ আদায় করা হয়।

 

যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় ২৩০ জন ‘স্যামস্যাম’ নামের এই র‍্যানসমওয়্যার অ্যাটাকের শিকার হন। তাদের কাছে সর্বমোট ৩০ মিলিয়ন ডলার দাবি করেছিল হামলাকারীরা। কম্পিউটার সিস্টেমের দুর্বলতা ব্যবহার করে ক্ষতিকর এ সফটওয়্যারটি সিস্টেমে অনুপ্রবেশ করানো হয়। এরপর হামলাকারীরা বিনা অনুমতিতে ওই সিস্টেমের অ্যাডমিনিস্ট্রেটর পাওয়ার নিয়ে এর যাবতীয় ফাইলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয়।

 

এ ঘটনায় ২০১৬ সালে হলিউডের একটি হাসপাতাল অচল হয়ে পড়ে এবং সেখানকার সব রোগীকে অন্যত্র সরিয়ে নিতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ। হামলার শিকার আরও অনেকে বিভিন্ন ইউটিলিটি বিল জমা দিতে পারছিলেন না। পুলিশ বিভাগ দাপ্তরিক কাজে অনলাইন সিস্টেম বন্ধ করে কাগজ ব্যবহার করতে বাধ্য হয়েছিল। যুক্তরাষ্ট্র ছাড়াও যুক্তরাজ্য ও কানাডাতেও এ হামলা চালানো হয়েছে বলে জানিয়েছে এফবিআই।

মাহা/শাই/মাও
LIVE
Play
আকাশের আত্মহত্যা ও পুরুষতান্ত্রিক তসলিমা নাসরিন
লাল সবুজের পতাকা কন্যা নাজমুন নাহার দেশ দেশান্তে!
‘বিএনপির মৌসুমীরা’ আওয়ামী লীগে মৌসুমী পাখি!
অ্যাডভেনচারের নেশায় | পর্ব ৩