বাংলাদেশ

৭ বছরেও কূলকিনারা হয়নি সাগর-রুনি হত্যা রহস্যের

সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনি হত্যাকাণ্ডের সাত বছর পেরিয়ে গেলেও মামলার অগ্রগতি হয়নি কিছুই। বারবার সময় বেধে দিলেও তদন্ত রিপোর্ট-ই জমা পড়েনি এতদিনে।

 

২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর পশ্চিম রাজাবাজারের ভাড়া বাসায় খুন হন সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনি। সেই হিসেবে এই সাংবাদিক দম্পতি খুনের সাত বছর পেরিয়েছে গতকাল রোববার।

 

খুনের ঘটনার পরপরই তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সাহারা খাতুন ৪৮ ঘন্টার মধ্যে খুনিদের আইনের আওতায় আনার প্রতিশ্রুতি দিলেও পেরিয়ে গেছে সাতটি বছর। এতদিনেও ধরা পড়েনি জড়িতরা। জানা যায়নি, কি-বা হয়েছিল সেদিন।

 

পুলিশ, সিআইডি ও ডিবি’র হাত ঘুরে এই মামলার তদন্তভার এখন র‌্যাবের ওপর। আর এরমধ্যে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পরিবর্তন হয়েছে ৪ বার। সবশেষ গত ৯ জানুয়ারি প্রতিবেদন দাখিল করার তারিখ ছিলো। তবে ঐদিনও প্রতিবেদন দাখিল না করায় ৬২ বারের মতো সময় বাড়িয়ে আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি নতুন তারিখ ধার্য করেন ঢাকার মহানগর হাকিম দেবব্রত বিশ্বাস।

 

মামলার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আবদুল্লাহ আবু বলেছেন, ‘চাঞ্চল্যকর এই মামলায় পুলিশ তদন্ত করেছে, র‌্যাব তদন্ত করছে। এখনও কোন ক্লু পাচ্ছে না তারা। ডিএনএ টেস্টও হয়েছে। কিন্তু কোন অগ্রগতি হয়নি। যেহেতু এটি চাঞ্চল্যকর মামলা, তাই যেনতেনভাবে তদন্ত করে চার্জশিট দেয়া ঠিক হবে না।’

 

এই হত্যা মামলার বিচার পেতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আবু জাফর সূর্য। তিনি বলেছেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী স্বজন হারিয়েছেন। এর বেদনা তিনি বোঝেন। আশা করি তিনি সাগর-রুনি সন্তান মেঘের বেদনা উপলব্ধি করেই এই বিচারটি যথাযথভাবে জরুরি ভিত্তিতে করবার পদক্ষেপ নেবেন।’

 

 

মেহেরুন রুনির ভাই নওশের রোমান বলেন, ‘আমরা এই মামলার কোন অগ্রগতি দেখছি না। তদন্ত সংস্থা র‌্যাব কোন তদন্ত করছে কিনা আমরা জানি না। না করলে কেন জিনিসটা নষ্ট করছে জানি না। আমরা তো বিচার চাইবোই। আসলে পুরো ব্যাপারটি নিয়ে আগে থেকেই আমরা হতাশ।’

 

এদিকে, বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে কথা বলতে চাইলে রাজি হননি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

 

ফাহো/তুখ/ফই
LIVE
Play
আকাশের আত্মহত্যা ও পুরুষতান্ত্রিক তসলিমা নাসরিন
লাল সবুজের পতাকা কন্যা নাজমুন নাহার দেশ দেশান্তে!
‘বিএনপির মৌসুমীরা’ আওয়ামী লীগে মৌসুমী পাখি!
অ্যাডভেনচারের নেশায় | পর্ব ৩