বাংলাদেশ

চলে গেলেন জাবির সাবেক উপ-উপাচার্য ড. আফসার আহমেদ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ও সাবেক উপ-উপাচার্য ড. আফসার আহমেদ মারা গেছেন।

শনিবার দুপুরে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

এশার নামাজের পর বিশ্ববিদ্যালয়ে তারা জানাজা হতে পারে বলে নিশ্চিত করেছেন তার সহকর্মী নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড. সোমা মুমতাজ।

তিনি আরও বলেন, এক সাবেক শিক্ষার্থীর বিয়ের আশীর্বাদে অংশ নিতে আফসার আহমেদ স্যার খুলনায় গিয়েছিলেন। আশির্বাদের অনুষ্ঠান শেষে আজ সকালে যশোর বিমানবন্দর থেকে বিমানযোগে ঢাকায় ফিরেন।

বিমানবন্দরে নামার পর তার হৃদক্রিয়ায় সমস্যা দেখা দেয়। পরে চিকিৎসার জন্য সেখান থেকে সরাসরি জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে নেওয়া হয় স্যারকে। সেখানে তিনি সিসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

সোমা মুমতাজ জানান, স্যারের লাশ বিশ্ববিদ্যালয়ে পৌঁছালে আজ এশার নামাজের পর ক্যাম্পাসেই তার জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। হৃদরোগ ছাড়া তার আর কোন শারীরিক জটিলতা ছিল না। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬২ বছর।

অধ্যাপক ড. আফসার আহমেদের জন্ম ১৯৫৯ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর, মানিকগঞ্জ জেলার সিঙ্গাইর উপজেলার উত্তর জামশা গ্রামে। বাংলা ভাষা ও সাহিত্য বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর উভয় পরীক্ষায় প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অধিকার করেন তিনি।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যযুগের বাঙলা আখ্যান কাব্যের আলোকে বাংলাদেশের নৃগোষ্ঠী নাট্য শীর্ষক অভিসন্দর্ভের জন্য তিনি পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন।

ড. আফসার আহমদ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগে প্রভাষক হিসেবে শিক্ষকতা শুরু করেন।

পরবর্তীকালে রবীন্দ্রোত্তর কালের অন্যতম শ্রেষ্ঠ নাট্যকার ড. সেলিম আল দীনের সঙ্গে ১৯৮৬-৮৭ শিক্ষাবর্ষে বাংলাদেশের প্রথম পূর্ণাঙ্গ নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগ প্রতিষ্ঠা করেন।

এরপর এই বিভাগেই শিক্ষকতায় নিয়োজিত থেকে বিভাগের সভাপতি, বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ও মানবিক অনুষদের ডীন, প্রক্টর, সিনেট-সিন্ডিকেটের নির্বাচিত সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

ফাসা/ফই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

LIVE

অন্ধদের দৃষ্টি ফেরাবে বায়োনিক চোখ
আপনার ফোনে আড়ি পাতলে কিভাবে বুঝবেন?
দিলীপের পরকীয়ার যাতনা আমৃত্যু সয়েছেন সায়রা
গাঁজা সেবনকারীর মন ও মস্তিষ্কে কি ঘটায়?