বাংলাদেশ, খেলা, শীর্ষ খবর

মাহমুদউল্লাহর ডেলিভারিটি বৈধ নাকি ডেড বল?

শেষ টি-টোয়েন্টিতে শেষ বলে গিয়ে ম্যাচ হেরেছে বাংলাদেশ। তবে সেই শেষ বল জন্ম দিয়েছে নানা বিতর্ক। ক্রিকেট অভিধান মানলে যেখানে সম্ভাবনা ছিল ম্যাচের ফলাফল পরিবর্তন হওয়ার। তবে ভদ্রলোকের খেলা ক্রিকেটে দারুণ উদাহরণ সৃষ্টি করে গেলেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ্ রিয়াদ।

মিরপুরে ম্যাড়ম্যাড়ে ম্যাচের শেষ ওভারে ৮ রানের দরকার ছিল পাকিস্তানের। অপর প্রান্তে বল হাতে মাহমুদউল্লাহ্ নিজেই। প্রথম পাঁচ বলে একটি ছক্কা ও ৩ উইকেটের পতন ঘটল। কিন্তু মূল নাটকটি হয়েছে শেষ বলে।

যখন মাহমুদউল্লাহর বল খেলার চেষ্টা না করে তা ছেড়ে দিলেন মোহাম্মদ নওয়াজ। আর সে বল গিয়ে ভাঙল স্টাম্প। কিন্তু ডেড বল ঘোষণা করলেন আম্পায়ার।

নতুন করে আবার বল করতেই চার মারলেন নওয়াজ। বল পিচে পড়ার আগ মুহুর্ত পর্যন্ত স্ট্যান্স নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন নওয়াজ। তাই স্বাভাবিকভাবেই শেষ মুহুর্তে এমনভাবে বল ছেড়ে দেওয়া নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। মূলত মাহমুদউল্লাহ্র কৌশল বুঝতে ব্যর্থ হয়েই শেষ মুহুর্তে বল ছেড়ে দিয়েছেন তিনি।

ক্রিকেটের আইনে এ ব্যাপারে বলা হচ্ছে, যদি বল করার সময় ব্যাটসম্যান প্রস্তুত না থাকেন এবং বল করার পর সেটা খেলার চেষ্টা না করেন, তাহলে সে বল “ডেড বল” হিসেবে গণ্য করা হবে। আম্পায়ার যদি বিশ্বাস করেন, ওভাবে সরে যাওয়ার পেছনে যথেষ্ট যুক্তি আছে, তাহলে সে বলকে ওভারের অংশ হিসেবে ধরা হবে না।

আম্পায়ারের সিদ্ধান্তকে সম্মান জানিয়েই কোন প্রকার তর্ক-বিতর্কে জড়াননি মাহমুদউল্লাহ্। ডেড বল ঘোষণা করা বলটি পুনরায় করেন তিনি। ক্রিকেটের নিয়মে, এসব ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত আম্পায়ারের। তিনিই ঠিক করবেন, ব্যাটসম্যান আসলেই অপ্রস্তুুত ছিলেন কী না।

পিহা/ফই

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

LIVE

‘কাঁচা বাদাম’ গান ও একজন ভুবন বাদ্যকার
মা ও স্ত্রীর মধ্যে ভারসাম্য রাখতে চান?
অন্ধদের দৃষ্টি ফেরাবে বায়োনিক চোখ
আপনার ফোনে আড়ি পাতলে কিভাবে বুঝবেন?