31 C
Dhaka
বুধবার, জুলাই ৬, ২০২২

ক্যাসিনোর চোখ কপালে তোলা তথ্য

বিশেষ সংবাদ

- Advertisement -

জুয়ার ইতিহাস অনেক দিনের পুরোনো। এখনো বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ক্যাসিনোগুলোতে পলকে উড়ে যায় হাজার হাজার কোটি টাকা।

জেনে নেয়া যাক ক্যাসিনো নিয়ে বিস্ময় জাগানোর মতো কিছু তথ্য-

১.

পৃথিবীর প্রথম ক্যাসিনো ভেনিসের ‘রিদোতো’। যার বাংলা অর্থ ব্যক্তিগত কক্ষ। ক্যাসিনোটি খোলা হয় ১৬৩৮ সালে, পরে ১৭৭৪ সালে এটি বন্ধ হয়ে যায়।

২.

জুয়ার রাজধানী কি লাস ভেগাস? আরেকবার ভাবুন! চীনের ম্যাকাও জুয়ার সবচেয়ে আলোচিত জায়গা হিসেবে এখন গন্য করা হয়। কেবল ২০১৭ সালে ম্যাকাওয়ের ক্যাসিনোগুলো থেকে রাজস্ব আয় হয়েছে ২ দশমিক ১৫ বিলিয়ন ইউরো। যা প্রতিনিয়ত তরতর করে বাড়ছে।

৩.

মানুষের মনস্ত্বত্তের সাথে সংযুক্তি রেখে ক্যাসিনোর ভেতরের নকশা করা হয়। ক্যাসিনোতে সময়ের অপর নাম টাকা, টাকার অপর নাম সময়। যতবেশি সময় ক্যাসিনোতে দেওয়া হবে, তত বেশি টাকা ঢাকা হবে জুয়ার টেবিলে। যে কারণে অধিকাংশ ক্যাসিনোতে ঘড়ি থাকে না।

৪.

অ্যাশলে রিভেল নামের এক ব্যাক্তি তার পরনের কাপড় সহ সমস্ত সম্পত্তি বাজি ধরেছিলেন, যার বাজার মূল্য ছিলো ১ লাখ ৩৫ হাজার মার্কিন ডলার। কিন্তু, ভাগ্যের জোরে সেবার বাজিতে তিনি জিতে গিয়েছিলেন। টাকা হয়ে গিয়েছিলো দ্বিগুণ।

৫.

অনেকে বলেন ক্যাসিনোই নাকি রক্ষা করেছিলো ডেলিভারি কোম্পানি ফেডএক্সকে। ১৯৭০ সালের দিকে তেলের মূল্য বৃদ্ধির সাথে তাল মেলাতে না পেরে খেই হারিয়ে ফেলে কোম্পানিটি। তখন তাদের ট্যাঁকে ছিলো মাত্র ৫ হাজার ডলার। কোম্পানির সিইও ফ্রেড স্মিথ সেই টাকা নিয়ে চলে যান লাস ভেগাসে। যেখানে তিনি জুয়ায় ৫ হাজার ডলারকে পরিণত করেন ২৭ হাজার ডলারে। যা পরবর্তীতে কোম্পানির কাজে লাগান, যা ফেডএক্সকে বাঁচিয়ে তুলতে সাহায্য করেছিলো।

৬.

ছোট্ট দেশ মোনাকো বিখ্যাত অনেক কিছুর জন্য। দেশটিতে রয়েছে বিশ্ব খ্যাত ‘ক্যাসিনো দে মন্টে-কার্লো’। কিন্তু মোনাকোর অধিবাসীদের সেই দেশের ক্যাসিনোগুলোতে জুয়া খেলার বিধান নেই।

- Advertisement -
- Advertisement -

আরও পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisement -

সর্বাধিক পঠিত