28 C
Dhaka
সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২২

বিমানের অজানা কিছু বিষয়

বিশেষ সংবাদ

- Advertisement -

দেশে-বিদেশে বা দূরের গন্তব্যে কম সময়ে পৌঁছে যাওয়া যায় বিমানে করে। বিমানের অত্যাধুনিকতা আমাদের মুগ্ধ করলেও এর রয়েছে কিছু অজানা বিষয়। বিমানের এমন কিছু অজানা ও আকর্ষণীয় তথ্য জেনে নিন।

১.

বিমানের ভেতরের শুষ্কতা পৃথিবীর মরুভূমির শুষ্কতার চেয়েও বেশি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, বিমানের ভেতরকার আদ্রতা গড়ে ২০ শতাংশ ও শুষ্কতা ৮০ শতাংশ হয়ে থাকে।

২.

একটি বোয়িং ৭৪৭ মডেলের বিমান প্রতি সেকেন্ডে ১ গ্যালন জ্বালানী খরচ করে থাকে।

৩.

বিমান ওড়া ও অবতরণ করার সময়কে বিমান যাত্রার জন্য সবচেয়ে বিপজ্জনক সময় বলে মনে করা হয়।

৪.

বিমান সৰ্বোচ্চ ৪০ হাজার ফিট বা এর কিছু বেশি উপরে ওড়ে। বিমানের আরো উপরে ওড়ার ক্ষমতা থাকলেও যাত্রীদের স্বাস্থ্যঝুঁকির কথা চিন্তা করে এর চেয়ে বেশি উপরে বিমানকে ওড়ানো হয় না।

৫.

আপনি যখন বিমানে করে ভূপৃষ্ঠ থেকে ৪০ হাজার ফিট উপরে থাকেন, তখন আপনি মহাশূন্যের দিকে ৭ শতাংশ পথ এগিয়েছেন।

৬.

বিমানের যাত্রীদের প্রায় ৮০ শতাংশের মধ্যে এয়ার ফোবিয়া কাজ করে। এর মধ্যে রয়েছে উচ্চতাভীতি এবং বিমান দুর্ঘটনা হবার মত ভয়।

৭.

বিমানে ওঠার পর শীত করলে কেবিন ক্রুরা আপনাকে সুন্দর সুন্দর কম্বল দিয়ে যান। দেখতে সুন্দর আর পরিষ্কার মনে হলেও বিমানে থাকা এসব কম্বল গুলো কখনো প্রতি ফ্লাইটের মধ্যবর্তী সময়ে পাল্টানো হয় না, কিংবা পরিষ্কার করা হয় না। ওয়াল স্ট্রিট জার্নালের এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, প্রতি এক মাস পর পর এসব কম্বল গুলো পরিষ্কার করা হয়ে থাকে ।

৮.

বিমানে যাত্রা পথে যদি কেউ মারা যায় তাহলে তার মৃতদেহটি  সিটের সঙ্গেই সিট বেল্ট দিয়ে আটকানো থাকে। পরে মৃতদেহটিকে কম্বল বা চাদর দিয়ে ঢেকে রাখা হয়। ফ্লাইট শেষে মৃতদেহটি সরিয়ে ফেলার ব্যবস্থা করা হয়।

৯.

প্লেনে থাকা অক্সিজেন মাস্ক গুলো দেয়া হয় যে কোন জরুরি অবস্থার জন্য। কিন্তু এই অক্সিজেন মাস্ক গুলো দিয়ে আপনি কেবল ১৫ মিনিট শ্বাস নিতে পারবেন।

১০.

ফ্লাইটে থাকা অবস্থায় ইঞ্জিন বিকল হয়ে পড়লেও একটি প্লেন ৫ ঘন্টা টানা চলতে পারে। যদিও এর মধ্যবর্তী সময়ে পাইলটকে নিকটস্থ বিমানবন্দরে যোগাযোগ করে জরুরি অবতরণ করতে হয়।

১১.

ট্রাভেলম্যাথ এর সমীক্ষা বলছে, প্লেনে যাত্রীদের সামনে খাবার জন্য যে ট্রে টেবিলটি থাকে সেটিতে জীবাণুর পরিমাণ এখানকার অন্য যেকোন জায়গার চেয়ে বেশি। একটি ট্রে টেবিলের প্রতি ইঞ্চিতে ২১৫৫ টি ব্যাকটেরিয়ার কলোনী পাওয়া যায় যেখানে বিমানের টয়লেটের ফ্ল্যাশ বাটন বা অন্যান্য স্থানে এর সংখ্যা ২৬৫টি।

- Advertisement -
- Advertisement -

আরও পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisement -

সর্বাধিক পঠিত