♦♦ সারা দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরও ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৯৭৫ জন। ♦♦ করোনা উপসর্গ দেখা দিলে অথবা করোনা বিষয়ক জরুরি স্বাস্থ্যসেবা পেতে ৩৩৩ অথবা ১৬২৬৩ নম্বরে কল করুন এবং তথ্য পেতে www.corona.gov.bd ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন।। এ ছাড়া আইইডিসিআরের ইমেইল বা ১৬২৬৩ নম্বরে ফোন করা যাবে। ♦♦ www.livecoronatest.com এ আপনি ঘরে বসেই কোভিড-১৯ বা নভেল করোনা ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত কি'না, তা নিজেই মূল্যায়ন করতে পারবেন। এমনকি আপনার ঝুঁকির মাত্রা ও করনীয় সম্পর্কেও জানতে পারবেন।

করোনা ভাইরাসের সর্বশেষ খবর, বাংলাদেশ

করোনার উপসর্গ বুঝতে পারছেন না?

শরীরে হালকা জ্বর, খুশখুশে কাশি হলে সন্দেহ হতেই পারে, করোনা নয় তো? ঠিক কিভাবে বুঝবেন আপনার শরীরে করোনা সংক্রমণের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে?

কোভিড-১৯-এর উপসর্গ খুবই জটিল। কারও কারও শরীরে এমন উপসর্গ মারাত্মক হয়ে দেখা দিচ্ছে। কারও ক্ষেত্রে আবার সে ভাবে কিছুই বোঝা যাচ্ছে না। অল্প উপসর্গেই আটকে থাকছে তা। করোনা সংকরমণের এই বোঝা না যাওয়া বা অল্প উপসর্গে সচেতন না হওয়াটাই কাল হচ্ছে আমাদের। দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে রোগটি।

কারণ বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই করোনার কারণে সৃষ্ট রোগ কোভিড–১৯–এর প্রকাশ ঘটে জ্বরের মাধ্যমে। এমন অবস্থায় কী করবেন? জ্বর হলেই হাসপাতালে ছুটবেন?

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, না, জ্বর হলেই হাসপাতালে ছোটার দরকার নেই। কারণ এই রোগ খুবই সংক্রামক। এতে একজন থেকে অন্যজন, এমনকি হাসপাতালের অন্য রোগীরাও আক্রান্ত হতে পারেন।

তবে ঠিক কী কী উপসর্গ দেখা দিলেই আপনার করোনার জন্য টেস্ট করানো উচিত?


১.

এই ভাইরাসের প্রধান ও অন্যতম উপসর্গ জ্বর। তবে সব ক্ষেত্রেই যে জ্বর আসছে তা নয়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, ৮৮ শতাংশ ক্ষেত্রে জ্বর এলেও জ্বর আসছে না ১২ শতাংশের। সে ক্ষেত্রে কেবল শ্বাসকষ্ট বা কাশির উপসর্গ থাকবে।

২.

এ বার প্রশ্ন কেমন সর্দি? দেখা গিয়েছে, ‘রানিং নোজ’ অর্থাৎ নাক দিয়ে কাঁচা জল ঝরে চলা অতটা ভয়ের নয়। বরং কফ নেই, কিন্তু সর্দির জন্য অস্বস্তি আছে ও গলা জ্বালা ও গলা ব্যথা আছে— এমন হলে সতর্ক হতে হবে। হাঁচি কোনও কোনও ক্ষেত্রে থাকলেও সব ক্ষেত্রে ভয়ের নয়।

৩.

কাশির বেলাতেও খুশখুশে শুকনো কাশি ভয়ের। কাশি হলেই সাবধান। অনেকেই দিনে দু’-এক বার কাশলে তাকে স্বাভাবিক ভাবেই আমল দেন না। তবে যদি এই কাশি দিনের মধ্যে মাঝে মাঝেই হয় বা প্রতি দিনই অল্প করেও হয়, তা হলেও সচেতন থাকতে হবে। তখন দেখতে হবে শ্বাসকষ্ট বা জ্বর আসছে কি না। তবে এমন সর্দির জন্য গলা ব্যথা বা কাশি হলেও নিজের জিনিসপত্র আলাদা করে আলাদা থাকুন। হোম কোয়রান্টাইনের বেলায় নিয়মবিধিতে কঠোর হোন।বেশির ভাগ সময় দেখা যাচ্ছে, গলা ব্যথা-কাশির উপসর্গ দিয়ে শুরু হলেও এই ধরনের ভাইরাসের কারণে তা দ্রুত বাড়ে ও প্রবল জ্বর ডেকে আনে। সঙ্গে শ্বাসকষ্টও থাকে। শ্লেষ্মাজনিত অসুখ বেড়ে নিউমোনিয়ার দিকে বাঁক নেয় ও সিভিয়ার নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত করে।

৪.

নতুন করে দেখা যাচ্ছে, ডায়রিয়া আর এক উপসর্গ হয়ে দেখা দিচ্ছে। হঠাৎই শুরু হয়ে যাচ্ছে ডায়রিয়া। তবে সাধারণ ডায়রিয়া কি না তা বুঝতে পরের দুটো দিন খেয়াল রাখুন। এর দিন দুয়েকের মধ্যে যদি শ্বাস নিতে অস্বস্তি বা শর্টনেস অব ব্রিদ শুরু হয়, তবে সাবধান।

৫.

শ্বাসকষ্ট প্রথম থেকে না থাকলে যে কোনও একটি উপসর্গ দেখা দেওয়ার সাত-আট দিনের মাথায় প্রবল শ্বাসকষ্ট শুরু হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

LIVE


বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাস

বাংলাদেশ

আক্রান্ত
৩৫৫৮৫
সুস্থ
৭৩৩৪
মৃত্যু
৫০১
সূত্র:আইইডিসিআর

বিশ্ব

আক্রান্ত
৫৫৫৪৫০৪
সুস্থ
২৩৩১৫৯৭
মৃত্যু
৩৪৮১৪১
সূত্র: ওয়ার্ল্ড মিটার
ঈদের ইতিহাস
ঘূর্ণিঝড়ের নাম যেভাবে রাখা হয়
ঘূর্ণিঝড়ের সংকেত ও এর অর্থ
বারবার হাত ধোয়ার কারণে ত্বক শুকিয়ে গেলে যা করবেন