বাংলাদেশ

বালিশ, বই, পর্দা কাহিনি

হাসপাতালের রোগীর বেড আড়ালের জন্য ব্যবহৃত একটি পর্দার দাম- ৩৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা। আর একটি স্টেথোসকোপের দাম ১ লাখ ১২ হাজার ৫০০ টাকা। ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ গড়েছে দুর্নীতির নতুন নজির। এরই মাঝে, একটি কেনাকাটাতেই অন্তত ৪১ কোটি টাকার দুর্নীতির প্রমাণ পেয়েছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। সম্প্রতি বেরিয়ে এসেছে এমন তথ্য।

এর আগে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের কেনাকাটা নিয়েও হরিলুট চলছে। এই প্রকল্পে একটি বালিশ কিনতে লেগেছে ৫ হাজার ৯৫৭ টাকা। আর এই বালিশ ভবনের উপরে উঠতে বিল করা হয়েছে ৭৬০ টাকা প্রতিটি। একেকটি বিছানা কেনা হয়েছে ৫ হাজার ৯৮৬ টাকা আর বিছানা উপরে উঠাতে খরচ দেখানো হয়েছে ৯৩১ টাকা।

 

শত রকমের উপায় আছে কেনাকাটার ক্ষেত্রে দুর্নীতি করার। টেন্ডার প্রক্রিয়ার মাধ্যমে কাউকে টেন্ডার পাইয়ে দিতে চাইলে তাকে সব থেকে কম খরচের দেখানো, আগে থেকেই টেন্ডারের তথ্য ফাঁস করে দেয়া, দামের রেট বা হার বলে দেয়া হয়। এছাড়া টেন্ডারের বৈশিষ্ট্য বা শর্ত এমনভাবে সাজানো হয় যাতে নির্দিষ্ট কোন ব্যক্তিই ওই সুযোগটি পায়।

এধরণের আরো অনেক রকমের পদ্ধতি রয়েছে। কেনাকাটার ক্ষেত্রে দুর্নীতির এ খবর সরকার জানে বলেও মনে করেন বিশেষজ্ঞরা। আর এ কারণেই এ খাতে দুর্নীতি বন্ধে সরকার পাবলিক প্রকিউরমেন্ট অ্যাক্ট এবং ই-টেন্ডারিংয়ের ব্যবস্থা করেছে। কিন্তু এ ধরণের ব্যবস্থা নিয়েও কোন লাভ হচ্ছে না ।

সরকারি সাবেক আমলাদের বরাত দিয়ে বিবিসির এক প্রতিবেদন বলছে, সরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজনে বিভিন্ন ধরণের যন্ত্রপাতি ও পণ্যদ্রব্য কেনার ক্ষেত্রে দুর্নীতি করাটা সহজ বলে প্রায়ই এ খাতে দুর্নীতির অভিযোগ আসে। তবে এখাতে দুর্নীতি ধরাটাও সহজ বিধায় এ খাতের দুর্নীতির খবর সামনে আসলেও অন্যান্য খাতের খবর বাকি থেকে যায়।

সাবেক মহা হিসাব নিরীক্ষক এবং দুর্নীতি বিরোধী প্রতিষ্ঠান ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ-টিআইবির ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য এম হাফিজ উদ্দিন খান বলেন, “বহু ধরণের কাজের গ্রাউন্ড আছে যার দ্বারা কেনাকাটার সময় দুর্নীতি হয়ে থাকে। এটা নতুন নয়। বরং বহুদিন ধরে চলে আসছে এবং সময়ের সাথে এটি বেড়েই চলেছে।”

বিশিষ্টজনেরা মনে করেন,  সরকারি অর্থ নিয়ে এ ধরণের দুর্নীতি আসলে রাষ্ট্রীয় অর্থের অপচয়।

LIVE
Play
ছাত্র সংগঠনগুলোর আয়ের উৎস কী?
হলুদের গুণাগুণ
ভয়ঙ্কর গ্যাস এসএফ-সিক্স
বোকা পাখি ডোডো