আলোচিত, বিনোদন , ,

লঙ্কা-সুন্দরী জ্যাকলিন ফার্নান্দেজের জন্মদিন

অনেকেই জানেন যে, বলিউড অভিনেত্রী জ্যাকলিন ফার্নান্দেজের মিডিয়ায় পদার্পণ একজন  রিপোর্টার হিসেবে। বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকতে তাঁর পড়াশোনার বিষয়ও ছিল গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা। মূলত শ্রিলংকার বিউটি পেজেন্টই আজ তাকে নিয়ে এসেছে রুপালি পর্দার সেরা স্থানে।

বাবার অন্ধভক্ত এই মেয়ে। পরিবারের জন্য সব সময় হাড়ভাঙা পরিশ্রম করতে দেখেছেন তারা বাবা-মাকে। তাই গ্লামার দুনিয়ার নয়, নিজের বাবা ইলরয় ফার্নান্দেজকে জীবনের আদর্শ হিসেবে দেখেন জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজ।

View this post on Instagram

💋

A post shared by Jacqueline Fernandez (@jacquelinef143) on

সবাই আদর করে তাকে ডাকে ভারতের জ্যাক অফ হার্টস। ফার্নান্দেজ ১৯৮৫ সালের ১১ই আগস্ট এমন এক পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন যেখানে আছে শ্রীলঙ্কান, ক্যানাডিয়ান এবং মালায়শিয়ান বংশের ধারাবাহিকতা। বেড়ে ওঠা বাহরাইনে। কিন্তু সিডনিতে পড়াশোনা করেছেন গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা নিয়ে। তাই ছোটবেলা থেকেই সংস্কৃতির নানা রং এ রাঙিয়ে তুলেছেন নিজেকে।

জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজ শ্রিলংকান টেলিভিশনে বেশ কয়েক বছর সাংবাদিকতার পর ২০০৬ সালে শ্রীলঙ্কার প্রতিনিধিত্ব করেন মিস ইউনিভার্সে। আর এভাবেই চোখে পরেন বলিউডের। বেশ কয়েকবার নমিনেশন পেলেও এখন পর্যন্ত অভিনেত্রী হিসেবে তেমন কোন সম্মাননা অর্জন করতে পারেননি তিনি।

কিন্তু তাতে কি? নিজেকে উপহার হিসেবে দিয়েছেন জন্মভূমি শ্রীলঙ্কার দক্ষিণ উপকূলে অবস্থিত আস্ত একটি দ্বীপ। তার নতুন ট্যাগ হয়েছে ‘বিলাসী নায়িকা’ নামে। ক্যারিয়ারের শুরুর দিক থেকেই বাঘা বাঘা সব অভিনেত্রীদের সাথে পাল্লা দিয়ে চলেন জ্যাকলিন ফার্নান্ডেজ।

একটা সময় বাণিজ্যিক ঘরানার সিনেমার প্রস্তাব পেলে ‘না’ বলতে পারতেন না ফার্নান্ডেজ। কিন্তু এখন প্রায়ই ‘না’ বলছেন কেননা বৈচিত্র্যময় কাজের আগ্রহ তৈরি হলে পা ফেলতে হবে খুব সাবধানে। সময় পেলেই অনলাইনে ঢুঁ মারেন এই লাস্যময়ী অভিনেত্রী। সম্প্রতি বলিউডের অল্প যে কজন নায়িকা অনলাইন প্ল্যাটফর্মে কাজ শুরু করেছেন, তিনি তাঁদের অন্যতম। কেননা, অনেকের আগেই তিনি বুঝতে পেরেছেন, সামনের দুনিয়াটা ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের।

 

১১ অগাস্ট ২০১৯ সালে ৩৪ বছরে পা দিলেন ফ্ললেস বিউটি জ্যাকলিন ফার্নান্দেজ।

LIVE
Play
ছুটিতে ওবামা যে বইগুলো পড়বেন
বাণিজ্যযুদ্ধের লাভ-ক্ষতি
৭০ বছরের পুরোনো ভূতুড়ে ছবির রহস্য!
উসাইন বোল্টের গতির তুলনা!