বাংলাদেশ, বিনোদন ,

জাজের নতুন করে স্বপ্ন দেখার চেষ্টা

ঢালিউড ফিল্ম ইন্ড্রাস্ট্রির অবস্থা এখন অনেকটা দেশের নদী ভাঙ্গনের মত। অনেক কষ্ট করে ঘর তোলা হয়, সাজানো হয়, সপ্নও বোনা হয় কিন্তু তারপর হঠাৎ করে সেই সপ্ন নদীর গর্ভে চলে যায়। আবার নতুন করে ঘর বাধাঁর সপ্ন দেখে সিনেমাপ্রেমীরা। একই দৃশ্য চলছে ঢাকাই সিনেমার সেই জন্মলগ্ন থেকেই। প্রত্যেকবারই কেউ না কেউ এসে সেই ঘরের হাল ধরে। যেমন ২০১১ সালে নিজ হাতে সিনেমার হাল ধরেছিলেন জাজ মাল্টিমিডিয়া কর্ণধার আব্দুল আজিজ। তার ইচ্ছা, সপ্ন ছিল বাংলা সিনেমার ঘরকে এমন মজবুত পাথর দিয়ে গড়বেন যাকে কোন ঝড়ই দুর্বল করতে পারবেনা।  

পরিমনির সাথে সেলফি

কি করেননি তিনি? লস জেনেও দেশিয় চলচ্চিত্রে লগ্নি, যৌথ প্রযোজনায় ছবি নির্মান, নতুন নতুন নায়ক নায়িকা উপস্থাপন থেকে ফিল্ম ডিস্ট্রিবিউশন। প্রায় ১০ বছরে ৪২টি সিনেমায় লগ্নি করেন তিনি। রাতারাতি একটি ব্র্যান্ডে পরিণত হয় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান জাজ মাল্টিমিডিয়া। বেকার টেকনিশিয়ানরা জেগে উঠেছিলেন তারই কারণে। নুসরাত ফারিয়া, মাহিয়া মাহি, পূজা চেরী, বাপ্পী চৌধুরী, সিয়াম আজ দাপটে ঘুরে বেড়াচ্ছেন জাজের কারণেই।  কিন্ত সবশেষে সুনামের থেকে দুর্নামের ভাগি হলেন তিনি এবং তার প্রতিষ্ঠান। নায়িকা মাহি, পরিমনির সাথে প্রেমের গুঞ্জন, বাংলাদেশের সিনেমা সংগঠনগুলোর বিপরীতে কাজ করা থেকে শুরু করে বিদেশে টাকা পাচারের মামলার আসামিও হয়ে গেলেন তিনি। ব্যস, এভাবেই একদিন সবাইকে না জানিয়ে বিদেশে পাড়ি জমালেন সবার প্রিয় আব্দুল আজিজ। কোথায় আছেন, কেমন আছেন তা কেউ না জানলেও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কবিতা লিখে বেশ সরব তিনি। প্রতিদিনই কবিতার মাধ্যমে তার মনের ভাব প্রকাশ করছেন তিনি। বেশকিছুদিন আগে সিনেমার বেহাল দশা দেখে তিনি এক গণমাধ্যমে ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছিলেন যে বাংলা সিনেমা ইন্ড্রাস্ট্রি বাঁচাতে হলে এফডিসিতে তার মত নতুন একজন আজিজ লাগবে।

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি পোস্ট দিয়ে সবাইকে জাজের নতুন করে ঘুড়ে দাড়ানোর কথা জানান দেন তিনি। হলিউডের সাথে যৌথ প্রযোজনায় ৩টি নতুন সিনেমা নির্মান করছেন শীঘ্রই। যদিও কোন সংস্থার নাম উল্লেখ করেননি। ফ্লাইট চালু হলেই আমেরিকায় শুরু হচ্ছে এম আর নাইন – মাসুদ রানা সিনেমার শুটিং। এর জন্য শিল্পী আর কলাকুশলীদের প্রস্তুতি চলছে পুরোদমে। মুখ্য ভূমিকায় থাকছেন মডেল ও অভিনেতা এবিএম সুমন।

তিনি আরও জানালেন হলিউডে এম আর নাইন – মাসুদ রানা সফলতা পেলে এবিএমসুমন পরবর্তীতে সম্মানী হিসেবে ফিল্ম প্রতি পাবেন ৯ কোটি টাকার মত। এরই মধ্যে সিনেমাটির টাইটেল সং সম্পন্ন হয়েছে ইংরেজী ভাষায়। আমি একা নই বরং আগেরমতই সবাইকে নিয়ে পাড়ি জমাচ্ছি হলিউডে। দেশের সিনেমার স্বার্থেই তার সব ত্যাগ আর ভালোবাসা। এমনটাই জানালেন সিনেমাপ্রেমী আব্দুল আজিজ।

এবিএম সুমন, মাসুদ রানা চরিত্রের অভিনেতা

গত বছর বাংলাদেশের একটি প্রাইভেট চ্যানেলে ‘কে হবে মাসুদ রানা‘ নামের একটি রিয়েলিটি শো অনুষ্ঠিত হয় মাসুদ রানা চরিত্রের যোগ্যপাত্রের সন্ধানে। নানা আলোচনা সমালোচনার পর মডেল ও অভিনেতা এবিএম সুমনকেই মাসুদ রানা চরিত্রের জন্য চুক্তিবদ্ধ করা হয়। এর আগে ঢাকা অ্যাটাক এবং অচেনা হৃদয় দিয়ে সবার মন জয় করেছিলেন সময়পযোগী  নায়ক সুমন। প্রায় ১০০ কোটি টাকার বাজেটের সিনেমাটিতে নিজেকে নতুন ভাবে প্রতিষ্ঠিত করতে ঘরে বসেই প্রতিনিয়ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তিনি। তবে দর্শকের কাছে হাই বাজেট সিনেমা চোখে আরাম দিলেও নায়কের জায়গাটাকে নিজেকেই গড়তে হয় বলে ধারনা এবিএম সুমনের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

LIVE

স্যানিটাইজার ব্যবহারে বাড়ছে শিশুদের চোখের সমস্যা
অনলাইন আড্ডায় রুবানা হক
উচ্চ রক্তচাপে করণীয়
দ্রুত চুল লম্বা ও ঘন করার সহজ উপায়