বাংলাদেশ

শোভন-রাব্বানীর কমিটি নিয়ে যত সমালোচনা

ছাত্রলীগের ইতিহাসে এই প্রথম চাঁদাবাজির অভিযোগ মাথায় নিয়ে পদ হারালেন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। শনিবার রাতে রেওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও গোলাম রাব্বানীকে পদত্যাগের নির্দেশ দেয়া হয়।

ভালো ও ইতিবাচক সংবাদের শিরোনামের হতে না পারায়, সম্প্রতি তাদের ওপর বিরক্তি প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। দলীয় হাই কমান্ড দুই ছাত্রনেতার ওপর ক্ষুব্ধ হয়েছে আরও বেশকিছু কারণে।

বেশ কিছুদিন ধরে ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ সামনে আসে। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নকাজ থেকে কমিশন দাবি, টাকার বিনিময়ে কমিটিতে পদ দেয়া, অবৈধভাবে ক্ষমতা দেখানোর খবর প্রকাশ হয় সংবাদ মাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

দুপুরের আগে ঘুম থেকে না ওঠা, মধুর ক্যান্টিনে অনিয়মিত যাওয়া, অনৈতিক আর্থিক লেনদেনের অভিযোগও আছে রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও গোলাম রাব্বানীর বিরুদ্ধে। এছাড়া তাদের বিরুদ্ধে একাধিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথিকে কয়েক ঘণ্টা ধরে অপেক্ষা করানোর অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের বেশকজন জ্যেষ্ঠ নেতা।

হাই কমান্ডের এই প্রত্যাশা পূরণ করতে পারেননি ছাত্রলীগের শীর্ষ দুই নেতা। সম্প্রতি তাদের নেতিবাচক কর্মকাণ্ডে ক্ষোভ ঝাড়েন প্রধানমন্ত্রী। অবশেষে, শনিবার রাতে এলো পদত্যাগের নির্দেশ। মেয়াদ শেষ হওয়ার প্রায় এক বছর আগেই সরতে হলো শোভন ও রাব্বানীকে।

চাঁদাবাজি
সব অভিযোগ ছাপিয়ে গেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নকাজ থেকে কমিশন দাবির বিষয়টি। অভিযোগ ওঠে, শোভন ও রাব্বানী জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকার উন্নয়নকাজ থেকে চার থেকে ছয় শতাংশ চাঁদা দাবি করেন।

বিলাসী জীবন
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ভবনে নিজের কক্ষে শীতাতপ নিয়ন্ত্রণযন্ত্র (এসি) লাগিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েনগোলাম রাব্বানী। পদ পাওয়ার পরপরই তারা রাজধানীর কাঁঠালবাগান ও হাতিরপুলে যথাক্রমে ৭০ হাজার ও ৪০ হাজার টাকার ভাড়া ফ্লাটে জীবনযাপন শুরু করেন। ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হওয়ার পরদিন থেকে রাব্বানী টয়োটা কোম্পানির নোয়া মডেলের একটি মাইক্রোবাস ব্যবহার করতে শুরু করেন।

কমিটি করতে না পারা

গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে ২৯তম জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেওয়া হয় রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও গোলাম রাব্বানীকে। শীর্ষ নেতৃত্ব দায়িত্ব পাওয়ার ১০ মাস পর ৩০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি করে। কিন্তু বিতর্কিতদের নিয়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে অভিযোগ তুলে মধুর ক্যান্টিনে বিক্ষোভ করে পদবঞ্চিতরা।

দপ্তর সেলের অদক্ষতা
ছাত্রলীগের দপ্তর সেলের কার্যক্রম নিয়েও নেতাকর্মীদের বিস্তর অভিযোগ রয়েছে। নিয়মিত প্রেস রিলিজে বানান ভুল চোখে পড়ছে সংবাদকর্মীদের। অধিকাংশই প্রেস রিলিজই রাত ১২টার পর দেওয়া হয়। অভিযোগ আছে, জেলা নেতাদের, সাংবাদিকদের ফোন রিসিভ করেন না তারা।

সংগঠনে সমন্বয়হীনতা
পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে বিতর্কিতদের স্থান দেওয়া ছাড়াও মধুর ক্যান্টিনে সময় কম দেওয়া, দপ্তর সেল, পদবঞ্চিতদের মারধর করাসহ বিভিন্ন অভিযোগে বিতর্কিত হয়েছেন তারা।

গত বছরের মে মাসে ছাত্রলীগের সম্মেলন হলেও, তা শেষ হয় নেতৃত্ব নির্বাচন ছাড়াই। জুলাই মাসের শেষে, শোভনকে সভাপতি ও রাব্বানীকে সাধারণ সম্পাদক করে দুই বছর মেয়াদী আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়। আওয়ামী লীগের হাই কমান্ড চেয়েছিলো, ইতিবাচক সংবাদের শিরোনাম হবেন শোভন-রাব্বানী।

 

 

 

ফিহো/ফই

LIVE
Play
গাণিতিকভাবে সবচেয়ে নিখুঁত সুন্দরী বেলা হাদিদ!
স্পেনের জানা-অজানা
টিকটকের মধুবালা
ফোর্বসের তালিকায় ২০১৯ সালে ভারতের শীর্ষ ধনী