28 C
Dhaka
সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২২

বিশ্বকাপ ফুটবল : গ্রুপ এ’র খবর

বিশেষ সংবাদ

- Advertisement -

১৪ জুন, বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় রাত ৯টায় স্বাগতিক রাশিয়ার সঙ্গে সৌদি আরবের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে শুরু হয়েছে ‘গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ’।

বিশ্বকাপের ২০১৮ আসরের প্রথম ম্যাচে রাশিয়া-সৌদি আরব আর দ্বিতীয় ম্যাচে আগামীকাল ১৫ জুন, শুক্রবার মুখোমুখি উরুগুয়ে আর মিশর। এই সুযোগে গ্রুপ ‘এ’ প্রসঙ্গে একটু আলোচনা করা যাক।

গ্রুপ এ-তে রয়েছে চারটি ভিন্ন ভিন্ন মহাদেশের চারটি দল। দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের উরুগুয়ে, ইউরোপের রাশিয়া, আফ্রিকার মিশরের সঙ্গে এই গ্রুপে আছে এশিয়ার প্রতিনিধি সৌদি আরবও।

স্বাগতিক হওয়ার দৌলতে একমাত্র দল হিসেবে বাছাইপর্ব না খেলেই বিশ্বকাপের মূল আসরে খেলার সুযোগ পেয়েছে রাশিয়া। রাশিয়ান ফুটবলের আগের সুদিন এখন আর নেই। ২০০৮ ইউরোর পর কোনো বিশ্ব আসরেই রাশিয়ানরা খুব একটা সুবিধা করতে পারেনি। অবশ্য বিশ্বকাপের মতো টুর্নামেন্টগুলিতে স্বাগতিক দলগুলো খানিকটা বাড়তি সুবিধা পায়। পরিচিত আবহাওয়া ও পরিবেশ তো থাকেই, সঙ্গে যুক্ত হয় স্বদেশী ভক্তদের অকুণ্ঠ সমর্থন। রাশিয়ার জন্য সৌদি আরবের বিরুদ্ধের প্রথম ম্যাচটি হবে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কাগজ-কলমের হিসেবে একমাত্র এই খেলাটিতেই শক্তিমত্তার বিচারে প্রতিপক্ষের থেকে খানিকটা এগিয়ে থাকবে রাশিয়া। গ্রুপের কঠিনতর ম্যাচগুলো খেলার আগে রাশিয়া চাইবে পালে খানিকটা হাওয়া লাগিয়ে নিতে। সৌদি আরবের বিরুদ্ধে জিততে পারলে রাশিয়া অনেকখানি অনুপ্রাণিত হয়ে বাকি ম্যাচগুলো খেলতে পারবে। মনস্তাত্ত্বিকভাবে ইতিবাচক থাকতে হলে রাশিয়ার প্রথম ম্যাচ জেতার কোনো বিকল্প নেই।

রাশিয়ার প্রতিপক্ষ সৌদি আরবের উপর প্রত্যাশার তেমন একটা চাপ নেই। বাছাইপর্বে অস্ট্রেলিয়াকে গোল ব্যবধানে পিছনে ফেলে মূল আসরে জায়গা পাওয়াই সৌদি ফুটবলের জন্য যথেষ্ট বড় প্রাপ্তি। নির্ভারতাই তাই হয়ে যেতে পারে আর্জেন্টাইন কোচ হুয়ান এন্তোনিয়ো পিৎজির দলের মূল  হাতিয়ার। নকআউট পর্বে ওঠার তেমন একটা সম্ভাবনা হয়তো সৌদি আরবের নেই, তবে দলটিকে হালকাভাবে নিলে গ্রুপের অন্য দলগুলোকে তার খেসারত দিতে হতে পারে।

গ্রুপের অন্যতম শক্তিশালী দল মিশর। হেক্টর কুপারের শিষ্যদের রক্ষণভাগ যথেষ্ট সংগঠিত। দলে মাহমুদ ইব্রাহীম হাসান ও রামাদান সোভির মতো প্রতিভাবান আক্রমণাত্মক খেলোয়াড় থাকলেও গোলের জন্য গোটা মিশর তাকিয়ে থাকবে মোহাম্মদ সালাহ’র দিকে। উরুগুয়ের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচটির আগে মিশরকে একটা কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হবে। সম্প্রতি চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে ইনজুরিতে পড়ে অশ্রুসিক্ত অবস্থায় মাঠ ছাড়তে হয়েছিল ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের এই মৌসুমের সর্বোচ্চ গোলদাতা মোহাম্মদ সালাহকে। বিশ্বকাপ খেলার জন্য তিনি যে পরিমাণ ঝুঁকি নিচ্ছেন তা সম্মানের দাবি রাখে। তবে উরুগুয়ের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে তাঁকে খেলানোর সিদ্ধান্ত নিলে তা হিতে-বিপরীত হতে পারে মিশরের জন্য। উরুগুয়ের সেন্টারব্যাক জুটি (গোডিন ও হিমেনেজ) আক্ষরিক ও রূপক উভয়-অর্থেই ‘নির্দয়’। কেবল ইনজুরি থেকে উঠে আসা সালাহকে তাঁরা একেবারেই ছেড়ে খেলবেন না। বিপজ্জনক কোনো ট্যাকেলে যদি সালাহর ইনজুরি আরও জটিল হয়ে যায় তবে তা মিশরের জন্য হবে চূড়ান্ত হতাশার।

গ্রুপ ‘এ’ এর সবচেয়ে শক্তিশালী দলটার নাম উরুগুয়ে। দক্ষিণ আমেরিকান অঞ্চল থেকে বাছাইপর্বে দ্বিতীয় হয়ে মূল আসরে জায়গা করে নিয়েছে দলটি। রক্ষণভাগে তাঁদের রয়েছে একটা অত্যন্ত দৃঢ় সেন্টারব্যাক জুটি। অধিনায়ক ডিয়েগো গোডিনকে রক্ষণে সঙ্গ দেবেন হোসে হিমেনেজ। এই সেন্টারব্যাকদ্বয়ের জন্য বাড়তি সুবিধার জায়গা হলো ক্লাব ফুটবলেও তাঁরা একই দলের ( এটলেটিকো মাদ্রিদ) হয়ে খেলে থাকেন। ফলে তাঁদের মধ্যে বোঝাপড়ার ব্যাপারটি চমৎকার। দ্বিতীয় মেয়াদে উরুগুয়ের দায়িত্ব নেওয়া প্রাজ্ঞ কোচ অস্কার ট্যাবারেজের আরেকটি ভরসার জায়গা তাঁর দলের আক্রমণভাগ। দলের দুই মূল ফরোয়ার্ড এডিনসন কাভানি ও লুইস সুয়ারেজ সম্মিলিতভাবে আন্তর্জাতিক ফুটবলে প্রায় একশটির মতো গোল করেছেন। আক্রমণভাগে যে পরিমাণ দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা উরুগুয়ের আছে তা বহু দলেরই ঈর্ষার কারণ হওয়ার যোগ্য। উরুগুয়ের ফুটবলের একটি নিজস্ব দর্শন আছে। মাঠে উরুগুয়ের ফুটবলাররা জান উজাড় করে দিয়ে খেলেন। না হারার আগ পর্যন্ত তারা হারেননা। মুশকিলটা হল এই জেতার আকাংক্ষায় অনেক সময় তারা মাত্রা ছাড়িয়ে যান। এই প্রবণতা সবচেয়ে বেশি রয়েছে লুইস সুয়ারেজের। অধিনায়ক গোডিনও এই প্রভাবমুক্ত নন। স্নায়ুচাপ না নিতে পেরে যদি উরুগুয়ের কোনো খেলোয়াড় বাজে কোনো ট্যাকল করে বসেন, অথবা কোনো অসমীচীন কাণ্ড ঘটান তবে তা দলটার জন্য ভয়াবহ দুর্যোগের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে।

সাধারণ হিসাব বলে, এই গ্রুপটি থেকে চ্যাম্পিয়ন হিসেবে উরুগুয়ে ও রানার্সআপ হিসেবে মিশর পরের পর্বে উত্তীর্ণ হবে। তবে এদের কাউকে হটিয়ে দ্বিতীয় রাউন্ডের টিকিট অর্জন করে নেওয়া রাশিয়ার জন্য কষ্টকর হলেও অসম্ভব হবে না।

 

- Advertisement -
- Advertisement -

আরও পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisement -

সর্বাধিক পঠিত