বাংলাদেশ, শীর্ষ খবর

পাহাড় ধসে দুই শিশুর মৃত্যু

ভারী বৃষ্টির কারণে টেকনাফের বিভিন্ন নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। ১০-১২টি মাটির ঘর ভেঙে গেছে। পৃথক দুটি পাহাড় ধসে মাটি চাপা পড়ে দুই শিশু মারা গেছে।

নিহত দুই শিশু হচ্ছে, ফকিরামুড়া এলাকায় রবিউল আলমের ছেলে মেহেদী হাসান (১১) ও উরুমের ছড়া এলাকায় মোহাম্মদ আলমের সন্তান আলীশা (৫)। এ সময় আহত হয়েছেন অন্তত ১০ জন। আহতদের টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।এছাড়া বৃষ্টির পানিতে কয়েক’শ মানুষ পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন।

টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক খান এ আলম বলেছেন, হালিমা ও তাঁর মেয়ে ইসমত আরার অবস্থা আশঙ্কাজনক । তাদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ রবিউল হাসান বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমকে জানান, সোমবার দিন ও রাতভর টেকনাফে মাঝারি ও ভারী বৃষ্টিপাত অব্যাহত ছিল। মঙ্গলবার সকালে ভারী বৃষ্টিপাত হলে পল্লান পাড়ায় পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটে।

আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা (আইওএম) আগেই জানিয়েছিল, রোহিঙ্গা বসতির কারণে উখিয়া ও টেকনাফের ৮ হাজার একর বনাঞ্চল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। চলতি বর্ষা মৌসুমে গাছবিহীন শিবিরে ভারী বর্ষণে পাহাড়ধসের আশঙ্কা আছে। পাহাড়ে গাছপালা উজাড় ও পাহাড় কেটে ফেলার কারণে এ অঞ্চলে পাহাড় ধসে পড়াত প্রবণতা বাড়ছে।

LIVE
Play
ছাত্র সংগঠনগুলোর আয়ের উৎস কী?
হলুদের গুণাগুণ
ভয়ঙ্কর গ্যাস এসএফ-সিক্স
বোকা পাখি ডোডো